সর্বশেষ আপডেট : ৪ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

গৃহবধু লাইজু সিলেটের ‘জ্বিনের বাদশা’র ফাঁদে, অতঃপর ১৬ ভরি স্বর্ণালংকারসহ…

21abe291-0ede-4d5c-aeba-de7d30761c25ডেইলি সিলেট ডেস্ক::
সিলেটে জ্বিনের বাদশা পরিচয়ে প্রতারণার অভিযোগে মোঃ নূরে আলম (৩৮) নামের এক ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে। তার কাছ থেকে প্রতারণা করে হাতিয়ে নেয়া ১৬ ভরি স্বর্ণালংকারও উদ্ধার করা হয়েছে।

এসএমপি ডিবির অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মো: ইকবাল হোসাইন স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, সিলেট কোতয়ালী থানার ভাতালিয়ার মৃত হাজী নাছির উদ্দিনের ছেলে মোঃ নূরে আলম এর পেশা হচ্ছে বিভিন্ন মাজারে মাজারে ঘুরে বেড়ানো এবং লোকদের গতিবিধি পর্যবেক্ষণ করা। এক সময় মোঃ নূরে আলম নিজেকে একজন পীর হিসেবে জনগণের মধ্যে পরিচিত করার চেষ্টা করে।

গত কয়েকমাস ধরে সে তার মোবাইল থেকে প্রতিদিন অনবরত কয়েকশ অজ্ঞাত নম্বরে কল করতে থাকে। এর মধ্যে যাকে তার কাছে সুবিধাজনক মনে হয়-তার সাথে সে কথাবার্তা চালিয়ে যায় এবং বিভিন্ন ভাবে প্রতারিত করার চেষ্টা করে। তার এমনই একজন শিকার হলেন ফরিদপুর কোতয়ালী থানার ঝিলটুলি মোল্লাবাড়ীর এক গৃহবধু সাবেরা সুলতানা ওরফে লাইজু (৩৯)।

মোঃ নূরে আলম নিজেকে জিনের বাদশা পরিচয় দিয়ে লাইজুর সাথে প্রতিদিন অনেকক্ষণ ধরে মোবাইলে কথাবার্তা চালিয়ে যায় ও বিভিন্ন রকম আধ্যাত্মিক কথা, গজল, কোরআনের আয়াত, ইসলামিক কবিতা প্রভৃতি শোনায় এবং এক পর্যায়ে লাইজুকে সম্মোহিত করে ফেলে।

লাইজু নুরে আলমকে জানায় যে, তার কোন সন্তান নেই এবং এ নিয়ে সে বেশ অশান্তিতে রয়েছে। তখন নূরে আলম লাইজুকে তাবিজ-কবজের মাধ্যমে সন্তানের ব্যবস্থা করে দিবে বলে আশ্বস্ত করে এবং লাইজুকে তার সমস্ত স্বর্ণালংকার নিয়ে ঢাকায় গাবতলী বাস টার্মিনালে দেখা করতে বলে।

নূরে আলম বলে যে, স্বর্ণালংকারে দোয়া-দুরূদ এবং ঝাড়-ফুঁক দিলে লাইজু সন্তানের মা হতে পারবে। লাইজু সরল বিশ্বাসে ঢাকায় গিয়ে সন্তানের আশায় নূরে আলমের হাতে সমস্ত স্বর্ণালংকার তুলে দেয়। স্বর্ণ নেয়ার দুদিন পর নূরে আলম আচার অনুষ্ঠানের জন্য লাইজুর কাছে আরো ২০ লক্ষ টাকা দাবী করে। টাকা না দিলে তার এবং তার পরিবারের ক্ষতি হবে বলে ভয় দেখায়।

এমতাবস্থায় ভীষণ দুশ্চিন্তাগ্রস্ত লাইজু বাড়ী বিক্রি করে ১০ লক্ষ টাকা জোগাড় করে এবং টাকা কোথায় দিবে বলে নূরে আলমকে মোবাইলে জিজ্ঞেস করে। তখন নূরে আলম তাকে সিলেট শাহজালাল (রহঃ) মাজারে আসতে বলে। এর মধ্যে নূূরে আলম লাইজুর সাথে ফোনে কথাবার্তা আগের চেয়ে অনেক কমিয়ে দেয়। তখন লাইজুর মনে একটু সন্দেহ দেখা দেয়।

পরে লাইজু সিলেট এসে এসএমপি’র এডিসি (ডিবি) মোহাম্মদ ইকবাল হোসাইনকে বিষয়টি জানায়। গত ৫ জুন রাত ১১ টা ৩০ মিনিটে লাইজু নির্ধারিত স্থান তাজমহল হোটেলের দিকে আসেন। নুরে আলম তাদের কাছে গিয়ে পূর্ব নির্ধারিত ২০ লক্ষ টাকা আদায়ের জন্য চাপ দেয়। তখন আশপাশে ওঁৎ পেতে থাকা এসএমপি (ডিবি)’র টিম গিয়ে নুরে আলমকে হাতে নাতে গ্রেফতার করে।

ডিবি পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে সে লাইজুকে ঠকিয়ে স্বর্ণালংকার নেয়ার কথা স্বীকার করেছে। এ ব্যাপারে ডিবি পুলিশের পক্ষ থেকে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: