সর্বশেষ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে
শুক্রবার, ২ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

মাহমুদার মৃত্যু নিশ্চিত করতে গুলি

39নিউজ ডেস্ক : মাথার বাম ও ডান পাশে আঘাত করা হয়েছে ছুরি দিয়ে । বুকের মাঝখানে, কাঁধে, হাতের কনুই ও পিঠের মাঝখানেও রয়েছে বড় ছুরিকাঘাতের চিহৃ। এরকম ৮টি ধারালো অস্ত্রের আঘাত রয়েছে পুরো শরীরে জুড়ে। এছাড়া মাথার বাম পাশে করা হয়েছে গুলিও। শুধুমাত্র মৃত্যু নিশ্চিতে পুলিশের এসপি বাবুলের আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতুকে (৩২) এভাবে আঘাত করে খুন করে চলে যায় দুর্বৃত্তরা।

রোববার দুপুরে সুরতহাল প্রতিবেদন শেষে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের জরুরী বিভাগের সামনে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) পরিদর্শক মো. কবির এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, ‘মাহমুদা খানম মিতুর শরীরে ১০টি আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। মাহমুদার মাথার বাঁ পাশে গুলির আঘাত পাওয়া গেছে। এছাড়া মাথার ডান পাশে পাওয়া গেছে ইটের আঘাত। ইটের আঘাতটি হয়তো মাটিতে পড়ে যাওয়ার সময় পেয়েছেন। এছাড়া বুকে, পিঠে ও হাতে ধারালো অস্ত্রের আটটি আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। এর মধ্যে পিটে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাতের ফলে ইংরেজি ‘এল’ আকৃতির মতো হয়ে পড়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘ঘটনাস্থল থেকে অব্যবহৃত তিনটি বুলেট উদ্ধার করা হয়। এগুলো ৭.৬৫ বোর পিস্তলের গুলি হতে পারে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, হত্যাকারীরা খুব কাছ থেকে গুলি করেছে।’

এর আগে সকাল ৭টার দিকে নগরীর জিইসি মোড়ে প্রকাশ্যে গুলি করে তাকে হত্যা করা হয়। দুই ছেলে-মেয়েকে নিয়ে ক্যান্টনমেন্ট স্কুলে যাওয়ার সময় এ ঘটনা ঘটে।

অতি সম্প্রতি বাবুল আক্তারের পদোন্নতির পর ঢাকায় অবস্থান করলেও তার স্ত্রী ছেলে-মেয়েকে নিয়ে নগরীর জিইসি এলাকার একটি ফ্ল্যাটে থাকতেন।

পিবিআই চট্টগ্রাম প্রধান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বশির আহমেদ খান জানান, সকাল ৬টা ৩৫মিনিট দিকে বাসা থেকে ১০০ গজ দূরে ছেলেকে নিয়ে ক্যান্টনমেন্ট স্কুলে যাওয়ার পথে তিন মোটরসাইকেল আরোহী তাকে ধাক্কা দেন। এরপর তারা ছুরিকাঘাত করে পরপর তিন রাউন্ড গুলি ছুড়ে পালিয়ে যায়।

ঘটনাস্থল থেকে তিনটি গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়েছে। ছুরিকাঘাতের পাশাপাশি মাহমুদা আক্তারের মাথার বাম পাশে গুলিবিদ্ধ হওয়ায় তিনি ঘটনাস্থলেই মারা যান।

তিনি আরো জানান, এই হত্যাকাণ্ডের ধরন জঙ্গিদের দ্বারা সংঘটিত আগের হত্যাকাণ্ডগুলোর সঙ্গে মিল আছে। এটি একটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড। ঘটনাস্থলের অাশপাশের সিসিটিভির ফুটেজ সংগ্রহ করা হয়েছে। খুনিদের ধরতে অভিযান চলছে।

এদিকে ঘটনার পরপর সিআইডি, ডিবি, সিবিআই ও পুলিশ বিষয়টি তদন্তে মাঠে নেমেছে। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন সিএমপি কমিশনার ইকবাল বাহার। এসময় তিনি হত্যাকাণ্ডের সাথে জেএমবি জড়িত কি না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানান।

এদিকে এসপি বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খানমের হত্যাকাণ্ডের জন্য প্রাথমিকভাবে জঙ্গিকে দায়ী করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মো. আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। রোববার সকালে চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) এক অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘এ হত্যাকাণ্ড পৈশাচিক। বাবুল আক্তার একজন সৎ, নির্ভীক ও পরিশ্রমী অফিসার। তিনি দীর্ঘদিন ধরে জঙ্গি দমনে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। তাকে না পেয়ে তার স্ত্রীকে টার্গেট করা হয়েছে। এটি অত্যন্ত পৈশাচিক, নৃশংস ও ঘৃণিত হত্যাকাণ্ড।’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, ‘এর উপযুক্ত ব্যবস্থা নেয়া হবে এবং খুনিদের অবশ্যই চিহ্নিত করা হবে। মূল কারণ খুঁজে বের করতে গোয়েন্দারা কাজ করছে।’

উল্লেখ্য, এসপি বাবুল আক্তার গত বৃহস্পতিবার দীর্ঘদিনের কর্মস্থল সিএমপি ছেড়ে পুলিশ সদর দপ্তরে যোগদানের জন্য বর্তমানে ঢাকায় অবস্থান করছেন। তিনি চট্টগ্রামে জেএমবির সামরিক প্রধান জাবেদসহ বেশ কয়েকজন জঙ্গিকে গ্রেপ্তারের পাশাপাশি দেশে নতুন করে জঙ্গিবাদের উত্থানটি আবিষ্কার করেছিলেন।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: