সর্বশেষ আপডেট : ৩০ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

শেষ ধাপে সিলেট বিভাগের ৯১ ইউনিয়নে ভোট যুদ্ধ আজ

up nirbachon news daily sylhet 0-148 copyস্টাফ রিপোর্টার::
ষষ্ঠ ও শেষ ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনের আজ শনিবার ভোট গ্রহণ করা হবে সিলেট বিভাগের ১২ উপজেলায় ৯১ টি ইউনিয়নে। বিভাগের চার জেলায় ভোট উৎসবে অংশ নেবেন ১৩ লাখ ৮৯ হাজার ১৪৪ জন ভোটার। মোট ৮৩৬ কেন্দ্রে ৩ হাজার ৫৯৫ কক্ষে ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন ভোটাররা। আজ ভোটগ্রহণের মাধ্যমে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের সমাপ্তি ঘটছে।

আজকের এ নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করতে প্রশাসনের পক্ষ থেকেও সব ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নগুলোর ভোটকেন্দ্র সমূহে নির্বানি সরঞ্জামাদি পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। বিভাগের ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র সংখ্যা বেশি হওয়ায় নির্বাচনে ৭ স্তরের নিরাপত্তা দেবে পুলিশসহ অন্যান্য বাহিনী।
বিভাগের ১২ উপজেলার মধ্যে সিলেট জেলার তিনটি উপজেলায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। বিয়ানীবাজারে ১০ টি, জকিগঞ্জে ৯ টি এবং গোয়াইনঘাট উপজেলায় ২টিসহ মোট ২১টি ইউনিয়নে হবে আজ ভোটযুদ্ধ হবে।

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে ১টি, বিশ্বম্ভরপুরে ৫টি, তাহিরপুর ৭টি, ধর্মপাশা ৬টি ও জামালগঞ্জে ১০টি ইউনিয়নসহ ২৮ টি ইউনিয়নে, মৌলভীবাজারের সদর উপজেলার ১২টি ইউনিয়নে, হবিগঞ্জের সদরের ১১টি, বাহুবল উপজেলার ৭টি, চুনারুঘাট উপজেলায় ১০টি এবং বানিয়াচঙ্গ উপজেলার ১টিসহ ২৯টি ইউনিয়নে ভোট গ্রহণ করা হবে।

এদিকে, ৯১ টি ইউনিয়নে ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে ৬২৫টি কেন্দ্রকে চিহ্নিত করেছে প্রশাসন। এর মধ্যে সিলেটে ১০৮টি, মৌলভীবাজারে ৯৫টি, হবিগঞ্জে ২২৫টি এবং সুনামগঞ্জে ১৯৭টি কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ।

বিয়ানীবাজার প্রতিনিধি এম সিন উদ্দিন জানান, উপজেলার ১০ ইউনিয়নে আজ শনিবার ভোটগ্রহণ করা হবে। এ নির্বাচনে ১০টি ইউনিয়নেই আওয়ামী লীগের মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থীরা প্রতিদ্বন্দি¦তা করছেন। আর বর্তমান বিরোধ ীদল জাপার ৩ জন, বিএনপির ৯ জন, জাসদের ১ জন এবং জমিয়তের ২ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রতিদ্বন্দি¦তা করছেন।

এছাড়া, স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী হয়ে প্রতিদ্বন্দি¦তা করছেন জামায়াতের ৫ জন, আঞ্জুমানে তালামীযের ১ জনসহ ২২ জন।
১০ ইউনিয়নে মোট ৪৮ জন প্রার্থী চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দি¦তা করছেন। এর মধ্যে তিলপাড়া ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আব্দুল্লাহ আল সুফিয়ান আ.লীগ প্রার্থী ও মোল্লাপুর ইউনিয়নের জাতীয় পার্টি মনোনীত গিয়াস উদ্দিন তিনি বিএনপির বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুল মান্নানকে সমর্থন জানিয়েছেন।

আলীনগর ইউনিয়নে বিএনপি মনোনীত বর্তমান চেয়ারম্যান মামুনুর রশিদ মামুন ও আওয়ামী লীগ মনোনীত ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি নজরুল ইসলাম পরস্পরের সাথে ভোট যুদ্ধে প্রতিদ্বন্দি¦তা করছেন। এ ইউনিয়নে মোট ভোটার ১৪ হাজার ১১৬জন পুরুষ ৬ হাজার ৯৯০মহিলা ৭ হাজার ১২৬ জন।
চারখাই ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত বর্তমান চেয়ারম্যান মাহমদ আলী, জামায়াতে ইসলামী সমর্থিত স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মাওলানা আমির হোসেন চৌধুরী ও স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হোসেন মুরাদ চৌধুরী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দি¦তা করছেন। ইউনিয়নে মোট ভোটার ১৮ হাজার ১৭৭ জন পুরুষ ৯ হাজার ২০৪ মহিলা ৮ হাজার ৯৭৩ জন।

দুবাগ ইউনিয়নে প্রতিদ্বন্দি¦তা করছেন ৪ জন। আওয়ামী লীগ মনোনীত বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী (সাবেক চেয়ারম্যান) নাজিম উদ্দিন, বিএনপি মনোনীত নুরুল কিবরীয়া, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম মনোনীত মাওলানা নুরুল ইসলাম। এ ইউনিয়নে মোট ভোটার ১৪ হাজার ৭০১ জন। পুরুষ ১২ হাজার ৯১ এবং মহিলা ৭ হাজার ৪১০জন।

শেওলা ইউনিয়নে ৫ চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রতিদ্বন্দি¦তা করছেন। তারা হলেন, বিএনপি মনোনীত বর্তমান চেয়ারম্যান আখতার হোসেন খান জাহেদ, আওয়ামী লীগ মনোনীত জহুর উদ্দিন, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম মনোনীত মাওলানা আব্দুল হামিদ খান, জাসদ মনোনীত ইব্রাহীম আলী ও স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী সাকিল হোসেন রাজন। এ ইউনিয়নে মোট ভোটার ১৩ হাজার ৪৪ জন। পুরুষ ৬ হাজার ৩৫৫ এবং মহিলা ৬ হাজার ৬৮৯ জন।

কুড়ারবাজার ইউনিয়নে জাতীয় পার্টি মনোনীত বর্তমান চেয়ারম্যান আলকাছ আলী, আওয়ামী লীগ মনোনীত মাহমদ আলী, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী তুতিউর রহমান তোতা, বিএনপি মনোনীত আবু তাহের, জামায়াতে ইসলামী সমর্থিত স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মাওলানা আজিুজুল ইসলাম ও স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী আসলম আহমদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন। এ ইউনিয়নে মোট ভোটার ১৬ হাজার ৭৯০ জন। পুরুষ ৮ হাজার ১০২ এবং মহিলা ৮ হাজার ৬৮৮ জন।

মাথিউরা ইউনিয়নে প্রতিদ্বন্দি¦তা করছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত বর্তমান চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সিহাব উদ্দিন, বিএনপি মনোনীত জাকির হোসেন সুমন, স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি কছির আলী, স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুল ফাত্তাহ বকশী ও আমিমুল ইসলাম শাহেদ। এ ইউনিয়নে মোট ভোটার ৮ হাজার ৮০৫ জন। পুরুষ ৪ হাজার ২১১ এবং মহিলা ৪ হাজার ৫৯৩ জন।

তিলপাড়া ইউনিয়নে ৭ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দি¦তা করছেন। তারা হলেন আওয়ামী লীগ মনোনীত সাবেক চেয়ারম্যান এমাদ উদ্দিন, বিএনপি মনোনীত মো. আব্দুছ সাত্তার, স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী ইসলাম উদ্দিন ও আব্দুল্লাহ সুফিয়ান (তিনি আওয়ামী লীগ প্রার্থীকে সমর্থন জানিয়েছেন), আঞ্জুমানে আল ইসলাহ সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী হাফেজ জগলুল হক, জামায়াতে ইসলামী সমর্থিত স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী এডভোকেট আজিম উদ্দিন। এ ইউনিয়নে মোট ভোটার ১১ হাজার ৬৭১ জন। পুরুষ ৫ হাজার ৫৩৬ এবং মহিলা ৬ হাজার ১৩৫ জন।

মোল্লাপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রাণ বিষয়ক সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী এম এ কাদির ও জাকারিয়া হোসেন জাকার, বিএনপি মনোনীত সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল মতলিব, বিএনপির বিদ্রোহী স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আব্দুল মান্নান, জাতীয় পার্টি মনোনীত গিয়াস উদ্দিন (তিনি বিএনপির বিদ্রোহী স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আব্দুল মান্নান সমর্থন জানিয়েছেন) নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দি¦তা করছেন। এ ইউনিয়নে মোট ভোটার ১৩ হাজার২০৪ জন ।

মুড়িয়া ইউনিয়নে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে প্রতিদ্বন্দি¦তা করছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সামছুদ্দিন মাখন, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী অহিদুর রেজা মাছুম, বিএনপি মনোনীত ছাদ উদ্দিন সোনা, জামায়াতে ইসলামী সমর্থিত বর্তমান চেয়ারম্যান স্বতন্ত্র প্রার্থী আবুল খায়ের ও স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আব্দুল হাসিব। এ ইউনিয়নে মোট ভোটার ১৮ হাজার ৫৬ জন। পুরুষ ৮ হাজার ৭৯৫ এবং মহিলা ৯ হাজার ২৬১ জন।

লাউতা ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত বর্তমান চেয়ারম্যান এম এ জলিল, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী যুবলীগ নেতা গৌছ উদ্দিন, জাতীয় পার্টি মনোনীত উপজেলা জাতীয় পার্টির সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুল ইসলা লুকু, বিএনপি মনোনীত ছাত্রদল নেতা আব্দুল হক আখতার ও জামায়াতে ইসলামী সমর্থিত স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী দেলোয়ার হোসেন। এ ইউনিয়নে মোট ভোটার ১৪ হাজার ৯৩৩ জন। পুরুষ ৭ হাজার ৩৬৪ এবং মহিলা ৭ হাজার ৫৬৯ জন।

জকিগঞ্জ প্রতিনিধি আল মামুন জানান, আজ শনবিার শেষধাপে জকিগঞ্জ উপজেলার ৯টি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সকাল ৮টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে চলবে বিকাল ৪টা পর্যন্ত। ৯ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৫০ জন, সাধারণ সদস্য পদে ৩৩৯ ও সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ৮৭ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দি¦তা করছেন। উপজেলায় আওয়ামী লীগের ৯ প্রার্থী, বিএনপির ৭ প্রার্থী, জাতীয় পার্টির ৮ প্রার্থী, ইসলামী আন্দোলনের ১ প্রার্থী দলীয় প্রতীকে এবং আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাপার বিদ্রোহী প্রার্থীসহ স্বতন্ত্র আরো ২৫ চেয়ারম্যান প্রার্থী ভোট যুদ্ধে অংশ নিচ্ছেন।

এবারের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নয়টি ইউনিয়নে মোট ১ লক্ষ ৩৭ হাজার ১৬২ জন ভোটার রয়েছেন। এর মধ্যে ৬৭৪৯৫ জন মহিলা ও পুরুষ ৬৯৬৬৭ ভোটার।

শুক্রবার ৮৪টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণের সরঞ্জামাদি উপজেলা পরিষদ থেকে কেন্দ্রে কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা পুরো উপজেলায় টহল দিচ্ছেন। নির্বাচন অফিসের অনুমতিবিহীন গাড়ি চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

গোয়াইনঘাট প্রতিনিধি জাকির হোসেন জানান, উপজেলার দুইটি ইউনিয়নে আজ ভোট উৎসব হবে। ভোট গ্রহণে প্রস্তুত সীমান্ত জনপদখ্যাত গোয়াইনঘাটের লেঙ্গুরা ও নবগঠিত ডৌবাড়ি ইউনিয়ন। গত বৃহস্পতিবার মধ্যরাত শেষ হয়েছে সকল প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণা। নির্বাচন ঘিরে উৎসবের পাশাপাশি শঙ্কাও বিরাজ করছে। আজ এই দুটি ইউনিয়নে মোট ২১ হজার ৯শ’ ৯০ জন ভোটার ১৮টি ভোটকেন্দ্রে ভোটাধিকার প্রয়োগের মাধ্যমে তাদের পছন্দের প্রার্থীকে নির্বাচিত করবেন। সীমানা জটিলতা নিয়ে স্থগিত হয়ে থাকা গোয়াইনঘাট উপজেলার দুইটি ইউনিয়ন লেঙ্গুরা ও নবগঠিত ডৌবাড়ি ইউনিয়নে দীর্ঘ ১৩ বছর পর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে আজ। নির্বাচনকে ঘিরে দুটি ইউনিয়নের ভোটারদের মাঝে বিরাজ করছে নির্বাচনি উৎসবের আমেজ।

গোয়াইনঘাটের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সালাউদ্দিন জানান অবাধ, সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে জনগণের ভোটাধিকার প্রয়োগের জন্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী পক্ষ থেকে সবধরনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। তিনি জানান, দুইটি ইউনিয়নের মোট ১৮টি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে ৪টি কেন্দ্রকে অতি গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্র হিেিসবে গণ্য করে সাজানো হয়েছে নিরাপত্তাব্যুহ। নির্বাচনে পর্যাপ্ত পরিমাণ পুলিশ, র‌্যাব, মোবাইল টিম, প্রতিটি ইউনিয়নে একটি করে বিজিবি টিম নিরাপত্তা রক্ষায় নিয়োজিত রয়েছে। এছাড়াও ভোট কেন্দ্র সমুহের সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা স্বাভাবিক রাখতে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃতে দুইটি ইউনিয়নেই ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হবে।

সিলেট জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুজ্ঞান চাকমা বলেন, ‘সিলেটে ১০৮টি ঝুঁকিপূর্ণ ধরা হয়েছে। এরমধ্যে বিয়ানীবাজারে ৬৯, জকিগঞ্জে ৭১ এবং গোয়াইনঘাটে ১৮টি কেন্দ্রই ঝুঁকিপূর্ণ। এসব এলাকায় ৬-৭ স্তরের নিরাপত্তা বলয় থাকবে। মোতায়েন থাকবে পর্যাপ্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য।
হবিগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মিডিয়া) মাসুদুর রহমান জানিয়েছেন, জেলার ইউপি নির্বাচনে ২৬৯ কেন্দ্রের মধ্যে ২২৫টি কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ। সেখানেও পর্যাপ্ত নিরাপত্তা বলয় গড়ে তোলা হবে।

সিলেট আঞ্চলিক নির্বাচনী কর্মকর্তা এসএম এজহারুল হক জানান, শেষ ধাপে সিলেটসহ বিভাগের চার জেলার ১২টি উপজেলায় ৮৬টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনকে অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করতে সব ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

জগন্নাথপুর প্রতিনিধি জানান, উচ্চ আদালতের আদেশে স্থগিত হওয়া জগন্নাথপুর উপজেলার রানীগঞ্জ ইউনিয়নের নির্বাচন আজ শনিবার অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সে লক্ষ্যে নির্বাচনের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে নির্বাচন অফিসসহ স্থানীয় প্রশাসন।

রানীগঞ্জ ইউনিয়নে এবার চেয়ারম্যান পদে ৫ জন, সংরক্ষিত নারী সদস পদে ১১জন ও সাধারণ সদস্য পদে ৪৫জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দি¦তা করছেন। নির্বাচনে শেষ মুহুর্তের প্রচারনায় প্রার্থীরা ভোটারদের মন জয় করতে নানা কৌশল চালিয়ে গেছেন গতকাল দিনভর। রানীগঞ্জ ইউনিয়ন ঘুরে ভোটারসহ জনসাধারণের সাথে আলাপকালে দেখা যায়, এই ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে লড়াই হবে ত্রিমুখী।

কুশিয়ারা নদীর উত্তর ও দক্ষিনপার নিয়ে গঠিত রানীগঞ্জ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে নদীর দক্ষিনপারে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী রয়েছেন ২জন ও উত্তর পারে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী রয়েছেন ৩জন। প্রার্থীদের মধ্যে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী শহিদুল ইসলাম রানা (নৌকা), স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল হাফিজ (মোটরসাইকেল), বিএনপি মনোনীত প্রার্থী সামছুল ইসলাম (ধানের শীষ), আওয়ামী লীগের বিদ্রোহ প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান মজলুল হক (আনারস), স্বতন্ত্র প্রার্থী সুজায়েল আহমদ ( ঘুড়া) প্রতিক নিয়ে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।
এদের মধ্যে শহিদুল ইসলাম রানা (নৌকা), আব্দুল হাফিজ (মোটরসাইকেল) ও সামছুল ইসলাম (ধানের শীষ) প্রতিকের মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে। ৩৫টি গ্রাম নিয়ে গঠিত রানীগঞ্জ ইউনিয়নে কামরাখাই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মেঘারকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, রৌয়াইল উচ্চবিদ্যালয়, আলমপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বাঘময়না সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, রানীগঞ্জ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, গন্ধর্বপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, নারিকেলতলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, কুবাজপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ঘোষগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ইছগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, অরুনোদয় বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও দোস্তপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে মোট ভোটার সংখ্যা ২২হাজার ৯শ ২৯জন। পুরুষ ভোটার ১১হাজার ২শ ৬৮জন ও মহিলা ভোটার ১১ হাজার ৬শ’ ৬১ জন।

মহিলা সদস্যা ও সাধারন সদস্য পদে যারা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন তারা হলেন ১, ২ ও ৩ নং ওয়ার্ডের পিয়ারা হোসেন (সূর্যমুখী ফুল), রোকশানা বেগম (হেলিকপ্টার), মোছা. রূপপতি চৌধুরী ( মাইক), শেলী রানী দাস (তালগাছ), ৪, ৫ ও ৬ নং ওয়ার্ডের এলাছি বিবি (বক), রুপতেরা বেগম (তালগাছ), ৭, ৮ ও ৯নং ওয়ার্ডের কিবরিয়া বেগম (তালগাছ), আম্বিয়া বেগম (বক), নাছিমা বেগম (জিরাপ), হেলেনা বেগম (সূর্যমূখী ফুল), সৈয়দা শিউলী আক্তার (মাইক)। সাধারণ সদস্য পদে ১নং ওয়ার্ডের ইসলাম আহমদ (ফুটবল), তাপস চন্দ্র দাস (ঘুড়ি), দীপক কুমার দাস তালুকদার (আপেল), নিবারন দাস তালুকদার (মোরগ), বরুন দাস তালুকদার (ভ্যানগাড়ি), মাহমদ মিয়া (বৈদ্যুতিক পাখা), কওছর মিয়া (তালা), সুবোধ চৌধুরী (টিউবওয়েল), ২নং ওয়ার্ডের আবু খালেদ জীবন (তালা), টিপু সুলতান (টিউবওয়েল), দিলীপ দাস তালুকদার (ফুটবল), নাজমুল হক (ঘুড়ি), ফারুখ মিয়া (মোরগ), মনিরুল ইসলাম (আপেল), ৩নং ওয়ার্ডের আব্দুল মতিন (মোরগ), গোলজার মিয়া (ফুটবল), দিদার আহমদ (ঘুড়ি), বজলু মিয়া (তালা), মমরাজ হোসাইন রাজ (টিউবওয়েল), ৪নং ওয়ার্ডের আবুল কাশেম (বৈদ্যুতিক পাখা), আব্দুল তাহিদ জুয়েল (ফুটবল), কন্নাল মিয়া (ঘুড়ি), কাপ্তান মিয়া (টিউবওয়েল), তেরা মিয়া (মোরগ), নাজমুল হক (তালা), ৫নং ওয়ার্ডের তৌরিছ মিয়া (মোরগ), কাচা মিয়া তালুকদার (ঘুড়ি), ইসরাক আলী (টিউবওয়েল), সুজাত আলী (তালা), রাজিব তালুকদার (ফুটবল), ৬নং ওয়ার্ডের এনাম উদ্দিন (মোরগ), আবুল কাশেম (তালা), আমিন মিয়া (ঘুড়ি), আবুল কালাম (বৈদ্যুতিক পাখা), নসাদ মিয়া (ফুটবল), মুজিবুর রহমান (আপেল), ৭নং ওয়ার্ডের জামিল আহমদ (মোরগ), কমলা মিয়া (টিউবওয়েল), মিলাদ মিয়া (ফুটবল), ৮নং ওয়ার্ডের নুরুল হক (ফুটবল), মুকিত মিয়া (তালা), লাল মিয়া (টিউবওয়েল), ৯নং ওয়ার্ডের অলি মিয়া (মোরগ), আব্দুল জলিল (তালা), জয়নাল আবেদীন (ফুটবল)।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: