সর্বশেষ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে
শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

টেস্ট বাঁচাতে ভারত কী করবে বাংলাদেশকে সহযোগিতা?

full_1611778722_1464962966খেলাধুলা ডেস্ক: তিন মোড়লের ক্ষমতা অনেকটা শেষ। কিন্তু এখন আইসিসিই যেন সৈরশাসকের ভূমিকা পালন করছে। এবার নিজেদের অায় বাড়ানোর জন্য টেস্ট ক্রিকেটকে দুই স্তরে ভাগ করে ফেলতে চায় ক্রিকেটের এ নিয়ন্ত্রণ সংস্থা।

আর সেটি বাস্তবায়ন হলে বাংলাদেশের মতো র‍্যাঙ্কিংয়ের নিচু সারির দলগুলোকে খেলতে হবে অাইসিসি উঠতি দলের সঙ্গে। এদিকে আইসিসির কথায় ২০১৯ সাল থেকেই এই দ্বিস্তরের টেস্ট চালু হতে পারে বলে আভাস পাওয়া যাচ্ছে।

এতে করে টেস্ট ক্রিকেটে ‘রেলিগেশন’ ও ‘প্রমোশন’ ব্যবস্থা থাকবে। বর্তমানে টেস্ট র‍্যাঙ্কিংয়ের শেষ তিনটি দল হলো ওয়েস্ট ইন্ডিজ, বাংলাদেশ ও জিম্বাবুয়ে। তাহলে আইসিসি যদি দ্বিস্তরের পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করে সেক্ষেত্রে অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, ভারত, শ্রীলঙ্কা, পাকিস্তান, নিউজিল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকার মতো দলগুলোর বিপক্ষে টেস্ট খেলার

দ্বিস্তর টেস্ট কাঠামোতে প্রথম স্তর থেকে দু’বছর পর নেমে যাবে দ্বিতীয় স্তরে, আর দ্বিতীয় স্তর থেকে একটি দল উঠে আসবে প্রথম স্তরে পাশাপাশি সহযোগী দেশগুলোর মধ্যে থেকে দু’টি দলও পাবে টেস্ট স্ট্যাটাস পাওয়ার সুযোগ।

দিস্তর টেস্ট কাঠামো প্রসঙ্গে আইসিসির প্রধান নির্বাহী ডেভিড রিচার্ডসন বলেন, ‘আশা করি, আমরা এ বছরের শেষের দিকে সিদ্ধান্ত নিতে পারব কাঠামো কী হবে’। আপনি যদি সত্যিকারের একটা টেস্ট চ্যাম্পিয়ন নির্ধারণ করতে চান, তাহলে আপনাকে এমন একটা প্রতিযোগিতার ব্যবস্থা করতে হবে, যেখানে প্রতিটি দল সমান সুযোগ পায়। এর মানে হলো সমানসংখ্যক ম্যাচ, হোম আর অ্যাওয়েতেও, যাতে করে লিগ শেষে আপনি ঠিক করতে পারেন, কার মাথায় উঠবে চ্যাম্পিয়নের মুকুট।

শেষ পর্যন্ত দ্বিস্তর টেস্ট ব্যবস্থা চালু করলে বিপদে পড়ে যাবে বাংলাদেশই, বড় দলগুলোর সাথে কমে যাবে মাঠে নামার সম্ভাবনা। যার ফলে আর্থিকভাবেই ক্ষতিগ্রস্ত হতে হবে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) কে। তবে এই কাঠামো চালু না করার জন্য আইসিসির বোর্ড সভায় দাবি রাখবে বাংলাদেশ। যদিও সহযোগী দেশগুলোর পাশাপাশি টেস্ট স্ট্যাটাস প্রাপ্ত দলগুলোদের মধ্যে অনেকেই সমর্থন জানাবে নতুন এই কাঠামোকে।

এ কাঠামোতে বর্তমানের অবস্থায় থাকলে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও জিম্বাবুয়েকেও দ্বিতীয় স্তরের সমীকরণে পড়তে হবে। তবে তারা আইসিসির নতুন এই কাঠামোকে সমর্থন দেবে বলে কয়েকটি সূত্রে জানা গেছে। পাশাপাশি এই প্রস্তাবের বিরুদ্ধে দাঁড়ানোর জন্য এই দুই ক্রিকেট বোর্ডকে আমন্ত্রণ না জানালেও বিসিবি ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড বিসিসিআইয়ের সাথে দ্বিতীয় স্তর টেস্ট কাঠামো নিয়ে অালোচনায় বসতে পারে।

সুতরাং বিশ্ব ক্রিকেটের সবচেয়ে ক্ষমতাধর ক্রিকেট বোর্ড বিসিসিআই’ই কেবল পারে এক্ষেত্রে বাংলাদেশকে সাহায্য করতে। তারা বিসিবির পাশে দাঁড়ালে বন্ধ হয়ে যেতে পারে দ্বিতীয় স্তর টেস্ট কাঠামো ব্যবস্থা। তাই অাপাতত ভারতের হাতেই নির্ভর করছে বাংলাদেশের টেস্ট ভবিষ্যৎ।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: