সর্বশেষ আপডেট : ১ মিনিট ৫১ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ২৬ মার্চ, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ১২ চৈত্র ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

মানহানি মামলার কথা শুনে হাসলেন মৌসুমি

full_285077703_1460049245বিনোদন ডেস্ক:
বর্তমান প্রজন্মের জনপ্রিয় অভিনেত্রী মৌসুমী হামিদ। ২০১০ সালে লাক্স চ্যানেল আই সুপারস্টারের রানার আপ হয়েছিলেন তিনি। তারপর থেকে আলোচনায় আসেন তিনি। নিত্যদিন তার নতুন নতুন খবরে মুখরিত থাকে মিডিয়া।

দেশের একটি জনপ্রিয় জাতীয় দৈনিকে মৌসুমী হামিদের একান্ত এক সাক্ষাৎকারে তিনি তার প্রথম ভালবাসার কথা জানান। মৌসুমি হামিদ তার প্রথম ভালবাসা সম্পর্কে বলেন, আমি তখন খুলনা আজম খান কমার্স কলেজে পড়ি। ছেলেটির সঙ্গে একই ব্যাচে কোচিংয়ে পড়তাম। ছেলেটির নাম না বলি। টানা চার বছর আমাদের প্রেম ছিল।

কোচিংয়ে পড়ার সময় প্রথম প্রথম আমাদের দুজনের মধ্যে চরম শত্রুতা ছিল। কথা বলা তো দূরের কথা, সামনা সামনি পড়ে গেলে দুজনই উল্টো দিকে হাঁটা দিতাম। এভাবে চলতে চলতে তিন বছরের মাথায় শত্রুতা থেকে দুজনের বন্ধুত্ব হয়ে গেল। আমরা একে অপরকে ‘তুই’ সম্বোধন করতাম। আমরা দুজনই নিজেদের ব্যক্তিগত সব বিষয়ই একে অপরের সঙ্গে শেয়ার করতাম। কীভাবে জানি, একসময় প্রেম হয়ে গেল।

মফস্বল শহর। সব সময় আমরা একসঙ্গে ঘুরতে পারতাম না। দু-তিন মাস পরপর আমরা একসঙ্গে বের হতাম। রিকশায় চুপি চুপি সারা শহর ঘুরে বেড়াতাম। ঠিক চার বছরের মাথায় আমাদের প্রেম ভেঙে যায়। কিন্তু বন্ধুত্ব নষ্ট হয়নি। ছেলেটি এখন এমবিএ পড়ছে। এখনো খুলনায় গেলে দেখা হয়, আড্ডা হয়।

মৌসুমি হামিদের প্রথম ভালবাসার কথা শুনে, আবু তাহের তুষার নামের একজন ব্যক্তি জানান, মৌসুমি হামিদের সেই ভালবাসা তিনি। তবে মৌসুমি হামিদ তাকে ভালবাসতেন, কিন্তু তাহের উচ্চতায় ছোট হওয়ায় তাকে এড়িয়ে চলতেন। প্রথম ভালবাসার কথা বলে মৌসুমি মিথ্যাচার করেছেন বলেও দাবি জানান। এমনকি সেই ছেলে মৌসুমির বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করবেন বলেও জানান।

এই বিষয়ে যোগাযোগ করা হয় মৌসুমী হামিদের সাথে, তিনি শুরুতেই হাসিতে ফেটে পরে। তিনি জানান, তার ভক্ত সমর্থকেরা সবসময় তাকে নিজেদের ভালবাসার কথা জানান। তাকে তার ভক্তরা অনেক ভালবাসেন এবং তিনিও ভক্তদের ভালবাসায় সিক্ত। আবু তাহেরের নাম বলার পর তিনি জানান, এই নামে তিনি কাউকে জানেন না। আর তার প্রথম ভালবাসার নাম আবু তাহের তুষার নামের কেউ নন।

মানহানির কথা শুনে আবার এক চিলতে হেসে নেন তিনি। তার কাছে সম্পূর্ণ ব্যাপারটা অনেক অদ্ভুদ ও মজার মনে হয়। আর সেই ছেলের সকল আরোপ মিথ্যা বলেও জানান তিনি।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: