সর্বশেষ আপডেট : ৪ ঘন্টা আগে
রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

একজন আরাফাত হোসাইন রাহেল ও স্বার্থক রক্তযোদ্ধা

ff1557da-e6db-4d77-a745-76cdc911f159জাহিদ উদ্দিন, গোলাপগঞ্জ:
রক্তই রক্তের বিকল্প, অন্য কিছু নয়। অনেক চেষ্টা করেও বিজ্ঞানীরা কৃত্রিম রক্ত আবিষ্কার করতে সক্ষম হননি। রক্ত একটি অমূল্য সম্পদ। জরুরি প্রয়োজনে অনেক সময় রক্তের অভাবে মানুষের জীবন প্রদীপ নিভে যায়। তবে সমাজের কিছু মানুষ আছেন, যারা বিষয়টি নিয়ে ভাবেন এবং চেষ্টা করেন অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর। তেমনই একজন পুরুষ গোলাপগঞ্জের আরাফাত হোসাইন রাহেল। সময়মতো রক্ত পাওয়া নিশ্চিত করার লক্ষ্যে তিনি কাজ করে যাচ্ছেন। অচেনা-অজানা মানুষের সঙ্গে তৈরি করে চলছেন রক্তের বন্ধন।

প্রায় পাঁচ বছর ধরে রক্তদান উদ্বুদ্ধকরণের কার্যক্রম চালিয়ে আসছেন বিভিন্নভাবে।তিনি সিলেট জেলার বিভিন্ন উপজেলায় ক্যাম্পের মাধ্যমে স্বেচ্ছায় রক্তদান, ব্লাড গ্রুপিংয়ের পাশাপাশি রক্ত সংরক্ষণ, স্ক্রিনিং ও ক্রসম্যাচিং পরীক্ষার কাজেও সহযোগিতা করে আসছেন। এ ছাড়া রাহেল সামাজিক যোগাযোগ ফেসবুকের মাধ্যমে গড়ে তুলেছেন ৭৬ সদস্যের স্বপ্ন রক্ত দান ও সমাজ কল্যাণ সংস্থা নামে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। জাতীয় দিবসগুলোতে নিজেরাই ক্যাম্প তৈরি করে রক্তদান কার্যক্রম চালিয়ে আসছেন।রাহেলের জন্ম গোলাপগঞ্জ উপজেলার ফুলবাড়ি ইউপির মছকাপুর গ্রামে।বাবা এখলাছুর রহমান।পরিবারের পাঁচ ভাইবোনের মধ্যে রাহেল চার নাম্বার।রাহেল বর্তমানে লেখাপড়া শেষ করে একটি কোম্পানির জিএম হিসেবে কর্মরত আছেন।

স্বেচ্ছাসেবী এ কর্মকাণ্ডের পাশাপশি তিনি শীতবস্তু, খাদ্য বিতরণ সহ অসংখ্য সমাজসেবা মূলক কাজ করে যাচ্ছেন । রাহেলের সঙ্গে যারা কাজ করে যাচ্ছেন, তারা কেউ শিক্ষার্থী, কেউ চাকরিজীবী বা ব্যবসায়ী।

আরাফাত হোসাইন রাহেল বলেন, গত পাঁচ বছর ধরে আমরা বিভিন্নভাবে রক্তদান কার্যক্রম চালিয়ে আসছি। একজন মানুষের সবচেয়ে দামি উপহার রক্ত। জীবনের জন্য রক্ত ও রক্তের উপাদানগুলোর কোনো বিকল্প নেই। রক্তদান তাই সামাজিক অঙ্গীকার। এটি মানবিক দায়বদ্ধতাও বটে। সরকারি ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের মধ্যে সার্বিক সমন্বয় সাধনের মাধ্যমে জাতীয়ভাবে রক্তদান কেন্দ্র গড়ে তোলা এখন সময়ের দাবি। যেহেতু আমাদের দেশে প্রতিটি কেন্দ্রে পরীক্ষা-নিরীক্ষার গুণগত মান যাচাই করা একটি বড় চ্যালেঞ্জ। তাই ভবিষ্যতে সারাদেশে বিভাগভিত্তিক সাতটি রিজিওনাল সেন্টার স্থাপন করা যেতে পারে।

এ ব্যাপারে গোলাপগঞ্জ পৌরসভার ৫ নং ওয়ার্ডে দুই বারের নির্বাচত কাউন্সিলর রুহিন আহমদ খান বলেন, এ ধরনের স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের উদ্যোগ সমাজের কল্যাণ বয়ে আনে। রক্তদানকারীরা বীরের মর্যাদা পেয়ে থাকেন। যারা এ ধরনের কাজ করে যাচ্ছেন, তাদের জীবন বাঁচানোর দূত বলা হয়।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: