সর্বশেষ আপডেট : ২ মিনিট ৫২ সেকেন্ড আগে
বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

জানা-অজানা অনেক তথ্যে আইপিএল ২০১৬

full_648338045_1464601496খেলাধুলা ডেস্ক: ”২০১৬ আইপিএলে তরুন উদীয়মান ক্রিকেটার বাংলাদেশের কাটার বয় মুস্তাফিজ”

২০১৬ আইপিএলটা বাংলাদেশের মানুষ একটু বেশিই মনে রাখবে। কারন বাংলাদেশের তরুন পেসার মুস্তাফিজ তার অতি মানবিয় বোলিংয়ে সবার মন জয় করে নিয়েছেন। দল কে উপহার দিয়েছেন চ্যাম্পিয়ন ট্রপি।

আরেকটি জমজমাট আইপিএল আসর শেষ হলো। নবম আসরে এসে নতুন চ্যাম্পিয়ন দেখলো ক্রিকেট বিশ্ব। উত্তেজনাপূর্ণ হাই-স্কোরিং ফাইনালে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুকে ৮ রানে হারিয়ে শিরোপা উল্লাসে মাতে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ।১১৪ রানের ওপেনিং জুটির পরও ম্যাচ শেষে আট রানের আক্ষেপে পুড়ে বেঙ্গালুরু। পুরো টুর্নামেন্ট জুড়ে চার-ছক্কার ফুলঝুরি আর দারুণ সব বোলিং স্পেলও উপভোগ করেন দর্শকরা।

এবারের আসরে পরিসংখ্যান ঘাঁটলে জানা-অজানা অনেক তথ্যই উঠে আসবে। যাকে সংখ্যায় সংখ্যায় তুলে ধরা যেতে পারে।

ব্যাটিং:

দীর্ঘতম ছক্কা: ১১৭ মিটার (বেন কাটিং, বেঙ্গালুরুর বিপক্ষে ফাইনালে)।

মোট রান: ১৮,৮৬২।

বাউন্ডারি থেকে রান: ১০,৩৬০।

ছক্কা: ৬৩৮টি।

ফিফটি: ১১০টি।

সর্বোচ্চ ফিফটি: ৯টি (ডেভিড ওয়ার্নার)।

সর্বাধিক শূন্য: ৩ বার (শ্রেয়াস আয়ার)।

সর্বাধিক ছক্কা: ৩৮টি (বিরাট কোহলি)।

সেঞ্চুরি: ৭টি (বিরাট  কোহলি একাই চারবার সেঞ্চুরি উদযাপন করেন)

সবচেয়ে বেশি রান: ৯৭৩ (বিরাট কোহলি)।

সর্বোচ্চ ইনিংস:  ১২৯ অপরাজিত (এবি ডি ভিলিয়ার্স)।

দলীয় সর্বোচ্চ স্কোর: বেঙ্গালুরু-২৪৮/৩, প্রতিপক্ষ-গুজরাট লায়ন্স।

এক ম্যাচে দু’দলের সর্বোচ্চ মিলিত স্কোর: ৪০৯ (বেঙ্গালুরু ও সানরাইজার্স, ১২ এপ্রিল)।

সবচেয়ে বড় ব্যবধানের জয় (রান): ১৪৪ (গুজরাটের বিপক্ষে বেঙ্গালুরু)

সবচেয়ে বড় ব্যবধানের জয় (উইকেট): ১০ (গুজরাটের বিপক্ষে হায়দ্রাবাদ)।

সর্বোচ্চ গড়: ৮১.০৮ (বিরাট কোহলি)।

সর্বোচ্চ গড় স্ট্রাইক রেট: ২৩৩.৩৩ (রিশি ধাওয়ান, পাঞ্জাবের হয়ে মাত্র দুই ম্যাচ খেলেন)।

এক ইনিংসে সর্বোচ্চ স্ট্রাইক রেট: ৩৫০.০০ (সরফরাজ খান, হায়দ্রাবাদের বিপক্ষে)।

ইনিংসে সর্বাধিক ছক্কা: ১২টি (এবি ডি ভিলিয়ার্স, গুজরাটের বিপক্ষে ১০ চার ও ১২ ছক্কায় ১২৯ রানে অপরাজিত)।

চার-ছক্কায় এক ইনিংসে সর্বোচ্চ রান: ১১২ রান (এবি ডি ভিলিয়ার্স, গুজরাটের বিপক্ষে ১২৯ রানের অপরাজিত ইনিংসে ১০
চার ও ১২টি ছক্কা হাঁকান)।

বোলিং:

মোট উইকেট: ৬৬৫।

সর্বোচ্চ উইকেট: ২৩টি (ভুবনেশ্বর কুমার)

সেরা বোলিং ফিগার: ৪ ওভারে ৬/১৯ (অ্যাডাম জাম্পা)

সেরা গড়: ৪.০০ (শচীন বেবি, পুরো টুর্নামেন্টে ১১ ম্যাচে ১.৪ ওভার বোলিং করে ৮ রানের বিনিময়ে দুই উইকেট নেন)।

সেরা ইকোনমি রেট: ৩.০০ (নিতিশ রানা, এবারের আসরে চার ম্যাচে মাত্র ১ ওভার বোলিং করেন)।

ইনিংসে সেরা ইকোনমি রেট: ১.৫০ (ক্রিস গেইল, গুজরাটের বিপক্ষে দুই ওভারে ৩ রান দেন)।

ইনিংসে সবচেয়ে খরুচে বোলিং: ৬১ রান (শেন ওয়াটসন, হায়দ্রাবাদের বিপক্ষে ফাইনালে)।

হ্যাটট্রিক: ১টি (আক্সার প্যাটেল)।

সর্বোচ্চ গতির বল: ঘণ্টায় ১৫০.৩১ কি.মি (জেসন হোল্ডার)।

এক ম্যাচে সবচেয়ে বেশি অতিরিক্ত রান: ১৯ (কলকাতা, বেঙ্গালুরুর বিপক্ষে)।

সুপার ওভার: ০।

টুর্নামেন্টের শেষ বল: ৪ (ইকবাল আবদুল্লাহ, ভুবনেশ্বর কুমারের বলে)।

ফিল্ডিং:
সর্বোচ্চ ক্যাচ: ১৯টি (এবি ডি ভিলিয়ার্স)।

এক ইনিংসে সর্বোচ্চ ক্যাচ: ৩টি (সৌরব তিওয়ারি)।

উইকেটরক্ষক:
সর্বাধিক ডিসমিসাল: ১৮টি (নামান ওঝা, ১৭ ম্যাচে ১৮টি ক্যাচ)।

ইনিংসে সর্বাধিক ডিসমিসাল: ৪টি (পার্থিব প্যাটেল, গুজরাটের বিপক্ষে)।

পার্টনারশিপ:
সর্বোচ্চ রানের জুটি: ২২৯ (কোহলি ও ডি ভিলিয়ার্স, গুজরাটের বিপক্ষে)।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: