সর্বশেষ আপডেট : ৩৬ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সুনামগঞ্জে সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত সমর্থিত দলীয় ও বিদ্রোহী প্রার্থীরা বিজয়ী

Untitled-1 copyআল-হেলাল, সুনামগঞ্জ:: সুনামগঞ্জের দিরাই,জগন্নাথপুর ও শাল্লা উপজেলার মোট ১৯ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত এমপি সমর্থিত ১৬ জন দলীয় ও বিদ্রোহী প্রার্থীরা বিপুল ভোটের ব্যাবধানে বিজয়ী হয়েছেন।

এ পর্যন্ত প্রাপ্ত ফলাফলে জানা গেছে, জগন্নাথপুর উপজেলার পাঠলি ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সিরাজুল ইসলাম (আনারস), সৈয়দপুর শাহারপাড়া ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী তৈয়ব কামালী (আনারস),ছিলাউড়া হলদিপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হারুন-অর রশীদ (আনারস), কলকলিয়া ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুল হাশিম (চশমা),পাইলগাও ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী একলাছুর রহমান (ঘোড়া) নির্বাচিত হয়েছেন। দলীয় মনোনয়ন বঞ্চিত এসব বিদ্রোহী প্রার্থীদের প্রতি সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত এমপির সমর্থক তৃণমূল আওয়ামীলীগ নেতাকর্মী,ভোটার ও সমর্থকদের প্রকাশ্য স্বতস্ফুর্ত সমর্থন ছিলো। দলীয় একমাত্র প্রার্থী হিসেবে আশারকান্দি ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের শাহ আবু ইমানী (নৌকা) নির্বাচিত হয়েছেন। নির্বাচিত বিদ্রোহী প্রার্থীরা বলেন,বাণিজ্যের নৌকা ডুবে গেছে। কথিত নৌকাওয়ালারা মোটা অঙ্কের টাকা নিয়ে আমাদেরকে মনোনয়ন বঞ্চিত করা ছাড়াও প্রকাশ্য দিবালোকে এলাকায় এসে আমাদেরকে বহিষ্কার ঘোষনাসহ আমাদের বিরুদ্ধে বিষোধগারে লিপ্ত হয়েছিলেন। তাদের অপতৎপরতায় আমাদের পীঠ দেয়ালে লেগেছিলো। বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত এমপি ছাড়া আমাদের বিচার দেওয়ারও কোন জায়গা ছিলনা। তিনি আমাদেরকে ধৈর্য্যরে সাথে প্রতিকূল পরিবেশের মোকাবেলা করে শেষ পর্যন্ত প্রতিদ্বন্দ্বিতা চালিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছিলেন। আমরা জনগনের ভালবাসায় প্রিয় নেতার দোয়া ও আশীর্বাদের প্রমাণ পেয়েছি।

দিরাই উপজেলার ৯ ইউনিয়নের মধ্যে ৭টিতেই স্থানীয় এমপি সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত সমর্থিত দলীয় ও বিদ্রোহী প্রার্থীরা বিজয়ী হয়েছেন। এরা হচ্ছেন রফিনগর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী রেজওয়ান খান (নৌকা),ভাটিপাড়া ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী শাহজাহান কাজী (আনারস),রাজানগর ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের প্রার্থী সৌম চৌধুরী (নৌকা),দিরাই সরমঙ্গল ইউনিয়নে বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী এহসান চৌধুরী (আনারস),করিমপুর ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের আছাব উদ্দিন সরদার (নৌকা),জগদল ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী শিবলী আহমেদ বেগ (আনারস),তাড়ল ইউনিয়নে বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুল কদ্দুছ (আনারস)। দলীয় মনোনয়ন বঞ্চিত বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থীরা শেষ পর্যন্ত সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত এমপির আশীর্বাদপুষ্ঠ নেতাকর্মী সমর্থকদের সমর্থন নিয়ে বিজয়ী হয়েছেন। জেলা বিএনপির আহবায়ক সাবেক এমপি নাছির উদ্দিন চৌধূরীর সমর্থিত বিএনপির ২ প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন। এরা হচ্ছেন চরনারচর ইউনিয়নে বিএনপির রতন তালুকদার (ধানের শীষ) ও কুলঞ্জ ইউনিয়নে প্রবাসী মুজিবুর রহমান (ধানের শীষ)।

শাল্লা উপজেলার আটগাও ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের আবুল কাশেম (নৌকা),বাহাড়া ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের বিধান চৌধুরী (নৌকা),হবিবপুর ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের বিবেকানন্দ মজুমদার বকুল (নৌকা) ও শাল্লা ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী জামান চৌধুরী (আনারস) বিজয়ী হয়েছেন। প্রার্থীদের পুলিং এজেন্ট ও পর্যবেক্ষকদের কাছ থেকে এসব ফলাফল জানা যায়।

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ,সিলেট সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান,জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব মতিউর রহমান,সাধারন সম্পাদক জেলা পরিষদ প্রশাসক ব্যারিস্টার এম এনামুল কবির ইমন,সাবেক পররাষ্ট্র মন্ত্রী আব্দুস সামাদ আজাদের পুত্র আজিজুস সামাদ ডন,কেন্দ্রীয় কৃষক লীগ নেত্রী শামীমা শাহরিয়ার প্রমুখ জনপ্রিয় নেতা নেত্রীরা যেসব ইউনিয়নে গিয়ে দিনরাত অক্লান্ত পরিশ্রম করে ব্যাপক গণ সংযোগ চালিয়ে ছিলেন সেসব এলাকায় নৌকার চরম ভরাডুবি হয়েছে। আবার কেন্দ্রীয়,মহানগর ও জেলা কমিটির নেতৃস্থানীয়রা শাল্লা উপজেলায় গণ সংযোগে না যাওয়ায় সেখানে সুরঞ্জিত প্রিয় নৌকার প্রার্থীরা সহজেই বিজয়ী হয়েছেন।

২৮ মে শনিবার সুনামগঞ্জের শাল্লা,দিরাই ও জগন্নাথপুর উপজেলার ১৯ ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করে বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন। এ লক্ষ্যে কমিশনের জেলা কমিটির উপদেষ্টা রানীগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ মজলুল হক,জেলা শাখার সহ-সভাপতি মোঃ ফজলুল হক, জগন্নাথপুর উপজেলা প্রতিনিধি সাংবাদিক মোঃ জহিরুল ইসলাম লাল মিয়া,মোঃ মাফজুল ইসলাম খান,মোঃ কবির আহমদ, মুক্তার মিয়া, মোঃ কাশেম, মোঃ নিজাম উদ্দিন জালালী, মোঃ সুবেদ খান, মোঃ আবুল ফজল, মাসউদ আহমদ তালুকদার, মোঃ ফয়জুল হক, রিজু সুলতান, মোঃ অদুদ মিয়া কামালী, মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, মোঃ এনায়েল খান, সুহেল আহমদ খান,আমির আহমদ খান, মোঃ আব্দুল হক কামালী, মোঃ ইয়াকুব মিয়া ও রেজাউল করিমসহ একদল পর্যবেক্ষক বিভিন্ন ভোটকেন্দ্র পরিদর্শন করেন। কমিশনের জেলা শাখার সাধারন সম্পাদক সাংবাদিক আল-হেলাল সার্বিকভাবে পর্যবেক্ষকদের পর্যবেক্ষণ কার্যক্রম মনিটরিং করেন। জগন্নাথপুর উপজেলার ছিলাউড়া হলদিপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হারুন-অর রশীদ (আনারস) এর সমর্থকরা জানান,কেন্দ্রওয়ারী ফলাফলে আনারস বিজয়ী হয়েছে। রাত ৮ টায় ঘোষিত ফলাফলে রিটার্নিং অফিসারসহ নির্বাচন সংশ্লিষ্টরা তাই ঘোষনা দিয়েছেন। কিন্তু কনেট্রালরুমে বসে একটি মহল আনারসের বিজয় ছিনিয়ে নেয়ার জন্য উঠেপড়ে লেগেছে।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: