সর্বশেষ আপডেট : ১৫ মিনিট ৪১ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

তাহিরপুরে আ’লীগে বিভক্তি, সুবিধা জনক অবস্থানে বিএনপি

Up nirbachon news daily sylhetজাহাঙ্গীর আলম ভূঁইয়া, তাহিরপুর:
সুনামগঞ্জের তাহিরপুর সদর ৬ষ্ঠ ধাপে ৪জুন ইউপি নির্বাচনে দলীয় প্রতীকে প্রধান দু-দলের দুই প্রার্থী হলেও আ,লীগের রয়েছে দলীয় বিদ্রোহী ৩জন ও স্বতন্ত্র ৬জন সহ ১১জন চেয়ারম্যান প্রার্থী। আর তাদের প্রচার-প্রচারনায় নির্বাচনী উত্তাপ বিরাজ করছে তাহিরপুর সদর ইউনিয়নের ভোটারদের মাঝে। প্রার্থীদের ছবি সংযুক্ত শুভেচ্ছা প্রতীক সহ পোষ্টার,লিফলেট,ব্যানার দিয়ে এলাকার হাট বাজার সাজিয়ে দিয়েছে আর সকাল থেকেই মাইকে জুরে শুরেই প্রচার চলতে যার ফলে সা । নির্বাচন যত গনিয়ে আসছে দু-দলের দু প্রার্থী,দলীয় বিদ্রোহী ও স্বতন্ত্র প্রার্থীদের নানা মুখী প্রচারনার পর্যবেক্ষন ও হিসাব মেলাচ্ছে ভোটারা।
এবার উপজেলায় চেয়ারম্যান প্রার্থীদের আগ্রহ,সংখ্যার ভীরে দলীয় সমর্থন চাওয়া,না পেয়ে দলীয় বিদ্রোহী ও স্বতন্ত্র প্রার্থী হবার কারনে রীতিমত হিসিম খাচ্ছেন সাধারন ভোটারগন ও দলীয় প্রার্থীরা।

এই উপজেলায় একবার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হতে পারলে আর পিছনে তাকাতে হয় না কারন উপজেলার ৫ বছরের মধ্যে রাজ-ধীরাজে পরিনত করে দেয়। আর এবার উপজেলার বিভিন্ন হাওর ডুবে যাওয়া ও নির্বাচনে ১০ জন প্রার্থী প্রতিদন্ধীতা করার ফলে ভোটাদের ভোট কেনার জন্য নির্বাচনে চলে টাকার খেলা তাই চেয়ারম্যান পদটি এখন গুরুত্বের সাথে দেখছে দলীয় বিদ্রোহী ও স্বতন্ত্র প্রার্থীরা জানান সচেতন এলাকাবাসী।

প্রতি বছর এ উপজেলায় আ,লীগ,বিএনপিতে সাপে-নেউলে যুদ্ধ হলেও এবার দু-দলের বাহিরে শক্ত প্রতিদন্ধী হয়ে দারিয়েছে স্বতন্ত্র প্রার্থীরা। স্বতন্ত্র প্রার্থীরা দু-দলের একাধিক গ্রুপিং ও অভ্যন্তরীন কোন্দলকে কাজে লাগিয়ে ট্যাক্কা দিয়ে বাজঁ পাখির মত ছোঁ মেরে নিতে চাইছে মূল্যবান চেয়ারম্যান পদটি। তবে বিএনপি,আ,লীগ,আ,লীগের দলীয় বিদ্রোহী ও স্বতন্ত্র প্রার্থীদের মাঝে এবার ভোট যুদ্ধ হবে।

এদিকে বসে নেই প্রধান দু-দল আ,লীগ,বিএনপি প্রার্থীরা ভোটারদের মাঝে সকাল থেকে মধ্য রাত পর্যন্ত প্রচার-প্রচারনা,দলীয় সমর্থন আদায় ও ভোট চাচ্ছেন ভোটাদের দোয়ারে দোয়ারে গিয়ে। আর স্বতন্ত্র প্রার্থীরা আ,লীগ-বিএনপি কে পরোয়া না করে তারা তাদের পারিবারিক ও নিজেদের অবস্থান সামনে রেখে সবার মাঝে তুলে ধরে সবার কাছে প্রচারনায় ব্যাস্থ সময় পার করছে।

বিএনপি ও আ,লীগের দলীয় কোন্দল ও অভ্যন্তরীন বিরোধ থাকায় এবার নির্বাচনে নিজ নিজ দলের সমর্থন পাওয়ার পর প্রার্থীরা নির্বাচনে কত টুকুই বা ধরে রাখতে পারবে নিজেদের অবস্থান। ভোটারাই বা শেষ পর্যন্ত কতটুকু সমর্থন দিবে এ নিয়ে এলাকায় বইছে আলোচনা,সমালোচনার ঝড়।

কারন দলীয় সমর্থন না পেয়ে দলীয় বিদ্রোহী প্রার্থী হিসাবে ৩জন চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করছেন। যার ফলে এ উপজেলায় চার-মুখী লড়াইয়ের জন্য টান্ডা মাথায় নির্বাচনী প্রচারনা চালিয়ে যাচ্ছে প্রার্থীরা আর পর্যবেক্ষকরা করছেন নির্বাচনের ফলাফলের নানা হিসাব-নিকাশ। এদিকে বিএনপির একক প্রার্থী থাকায় বোরহান উদ্দিন আছেন সুবিধা জনক অবস্থানে।

এদিকে ভোটার গন বলেন-সৎ ও যোগ্য প্রার্থী দেখে এবার নির্বাচনে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করব। যার দ্বারা এলাকার উন্নয়ন হবে,সুখে দুঃখে পাশে থাকবে। আমাদের নিয়ে কথা বলার সৎ সাহস রাখবে। এবার নির্বাচন দলীয় প্রতীকে হলেও প্রার্থী দেখে এবার নির্বাচনে ভোট দিব।

জানাযায়-তাহিরপুর সদর চেয়ারম্যান পদটি র্দীঘ দিন ধরে তালুকদার ও আখঞ্জি দু-পরিবারে মধ্যে সীমাবদ্ধ ছিল তার পর ২৮বছর পর গত ১১আগষ্ট ২০১১ সালে উপজেলা বিএনপির যুবদল আহবায়ক জনপ্রিয় ও পরিচিত মুখ বোরহান উদ্দিন চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হন।

তিনি জানান,বিএনপির দলীয় প্রার্থী হয়ে নির্বাচন করছি। গত নির্বাচনে বিপুল ভোটে নির্বাচিত হয়ে এলাকার ব্যাপক উন্নয়ন করেছি। সবাই আমার প্রতি রয়েছে আলাদা ভালবাসা। সবার সুখে,দুঃখে পাশে ছিলাম আর পাশে থাকার জন্য দল আমাকে এবার দলীয় মনোনয়ন দিয়েছে এবার জনগন আমার প্রতীক ধানের র্শীষে ভোট দিয়ে আবারও ইউনিয়ন বাসীর সেবা করার সুযোগ দেবেন আমার বিশ্বাস।

সাবেক চেয়ারম্যান,উপজেলা যুবলীগ সভাপতি ও সবার পরিচিত মুখ মোতাহার হোসেন সামিম আখঞ্জি বলেন-এলাকাবাসী আমাকে উৎসাহ দিচ্ছে,সবার ভালবাসা নিয়ে আমি একবার এ পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত করেছে তাই আবারও নির্বাচন করছি। নির্বাচনে জয়ী হয়ে এলাকার উন্নয়নের করে একটি উজ্জল দৃষ্টান্ত স্থাপন এবং আ,লীগের সুনাম পুনরুদ্ধার করতে চাই।

জিল্লুর রহমান (স্বতন্ত্র) বলেন-দুটি দলের মধ্যে এখনকার রাজনীতি আর নির্বাচন সীমাবদ্ধ আমি এর এর বাহিরে থেকে নির্বাচনে নির্বাচিত হয়ে সবার মাঝে উন্নয়নের জোয়ার বইয়ে দিতে চাই। আমাকে সবাই সমর্থন করছে আশা করি নির্বাচনে জয়ী হব।

উপজেলা আ,লীগের সহ-সভাপতি ইকবাল হোসেন (আ,লীগের দলীয় বিদ্রোহী) বলেন, জনগন আমাকে সাহস ও উৎসাহ দিচ্ছে। জনগন পরিবর্তন চাইছে আর আমিও সেই পরির্বতনের অংশীদার হতে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করছি। স্বতন্ত্র প্রার্থী শেখ শফিকুজ্জামান বলেন,এবার নির্বাচনে ভোটার গন সৎ,যোগ্য ও নতুন চেয়ারম্যান প্রার্থীও নির্বাচনের জন্য অধির আগ্রহ নিয়ে আছে আর আমি তাদের চাওয়া কে পাওয়ায় পরিনত করার জন্য আমার সর্বচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি এবার নির্বাচনে। এবার জনগনের জয় হবেই।

নির্বাচনে প্রার্থীরা হলেন-বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবদলের আহবায়ক বোরহান উদ্দিন (বিএনপির দলীয় প্রার্থী ধানের শীষ),সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগ সভাপতি সামিম আখঞ্জী(আ,লীগের দলীয় প্রার্থী নৌকা),মোঃ ইকবাল হোসেন (আ,লীগ দলীয় বিদ্রোহী প্রতিক চশমা),স্বপন কুমার দাস(আ,লীগের দলীয় বিদ্রোহী প্রতিক ঢোল)হাফিজ উদ্দিন(আ,লীগের দলীয় বিদ্রোহী প্রতিক টেবিল ফেন),জিল্লুর রহমান (স্বতন্ত্র প্রতিক অটো রিক্সা),আতিকুর রহমান আতিক(স্বতন্ত্র প্রতিক টেলিফোন),আজিজুর রহমান(স্বতন্ত্র প্রতিক আনারস),শেখ শফিকুজ্জামান(স্বতন্ত্র প্রতিক মটর সাইকেল),মরম আলী(স্বতন্ত্র প্রতিক ঘোড়া) ও মহিলা চেয়ারম্যান প্রার্থী ফাহমিদা পাঠান (স্বতন্ত্র) তার প্রার্থীতা প্রত্যাহার করেছেন।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: