সর্বশেষ আপডেট : ৪৮ মিনিট ২২ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

জৈন্তাপুরে নবনির্মিত ব্রিজটির সংযোগ সড়ক ভেঙে গেছে

60746জৈন্তাপুর প্রতিনিধি:
সিলেটের জৈন্তাপুরে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের নবনির্মিত ব্রিজের সংযোগ সড়ক ভেঙে গেছে, দেবে গেছে ব্রিজটির কিছু অংশ। এলাকাবাসী জানান, ছাছিছড়া খালের উপর নির্মিত এই ব্রিজ পাহাড়ি ঢল নামলে একেবারেই ভেঙে যাবে। তাই দ্রুত মেরামতের উদ্যোগ নিতে হবে।

সরেজমিন পরিদর্শন করে দেখা যায় জৈন্তাপুর উপজেলার নিজপাট ইউনিয়নের অর্ন্তগত বাইরাখেল, হর্নি, ময়নাবস্তি, জালিয়াখলা, কালিঞ্জি এলাকার জনসাধারণ স্বাধীনতার পূর্ব হইতে বসবাস করে আসছে। তারা দীর্ঘ দিন ছাছিছড়া খালের উপর ব্রিজ স্থাপনের দাবি জানালে ইউপি চেয়ারম্যান মেম্বার কিংবা উপজেলা চেয়ারম্যানগন কেউই তাদের দাবিটি পূরণ করেননি।

অপরদিকে ২০১০ সনে সীমাহীন কষ্ট লাঘবের জন্য বাইরাখেল যুব সংঘের তরুণরা ছাছিছড়া খালের উপর প্রায় ৩৫ হাজার টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করেন একটি পাকা সাঁকো। এই পাকা সাকোটি নিয়ে একাধিকবার জাতীয় ও স্থানীয় পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের পর দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের ২০১৫-১৬ অর্থ বৎসরের সেতু/কালভার্ট নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় ১৭লক্ষ ৯৩হাজার ৬শত ৭৯ টাকা ব্যয়ে নিজপাট ইউনিয়নের বাইরাখেল ছাছিছড়া খালের উপর ২২ফুট দৈর্ঘ্যরে ব্রিজ স্থাপন করে। কিন্তু আগাম বর্ষার ফলে নেমে আসা বৃষ্টির পানিতে ভাসিয়ে নিয়ে গেছে ব্রীজের সংযোগ সড়কের দুই অংশ। পুরো বর্ষা কিংবা পাহাড়ি ঢল নামলে ব্রিজটি আর পাওয়া যাবে না বলে জানান বাইরাখেল গ্রামের বাসিন্ধারা।

এলাকাবাসীর অভিযোগ উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা সরেজমিন পরিদর্শন না করে এবং ছাছিছড়া খালের পুরো অংশ ৩০হতে ৩৫ ফুট দৈর্ঘ্য হবে। কিন্তু অপরিকল্পিত ভাবে খালের পুরো অংশ ব্যবহার না করে সংকোচিত অবস্থায় ২২ফুট দৈর্ঘ্য ব্রিজ নির্মাণ করা হয়। ফলে আগাম পাহাড়ি ঢলে ব্রীজের সংযোগ রাস্তা বিলীন হয়ে যায়। সেই সাথে ব্রীজের মাটিও সরে যায়।

এলাকাবাসীর প্রবীন মুরব্বী আব্দুল হক, জৈন্তিয়া ডিগ্রি কলেজের হিসাব সহকারী মোঃ আবুল হারিছ, বদরুল ইসলাম জানান- সরকারের মোটা অংকের অর্থ গচ্ছা দিতে অপরিকল্পিত ভাবে এই ব্রিজটি নির্মাণ করা হয়। তাদের ধারনা এই ব্রিজ নির্মাণে অফিস খরচ সহ সর্ব্বোচ্ছ ৭লক্ষ টাকা ব্যয় করা হয়েছে এবং বিল দেখানে হয়েছে প্রায় ১৮লক্ষ টাকা। তাই ব্রিজ নির্মাণের ৬মাস পূর্ণ হওয়ার আগেই অনাবৃষ্টিতে ধোঁয়ে নিয়ে গেছে ব্রীজের সংযোগ সড়ক। বাকি বর্ষা নামলে পুরো ব্রিজটি ভাসিয়ে নেবে।

এবিষয়ে জানতে চাইলে প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ব্যক্তি বলেন- ব্রিজটির বুঝে নেওয়া হয়েছে। কিছু দিনের মধ্যে ফাইনাল বিল টিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে বুঝিয়ে দেওয়া হবে। এর বেশি কিছু তিনি বলতে রাজি হননি।

এবিষয়ে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা নিরোধ চন্দ্র দাস জানান- বিষয়টি আমি জানি না, তবে খালের উপর নির্মিত ব্রিজটি যথা নিময়েই হয়েছে। নতুন কাজ অতিরিক্ত বৃষ্টির পানি হওয়ায় মাটি সরিয়ে নিয়ে যেতে পারে মাটি ভরাট করার জন্য আমি ঠিকাদার বলেছি।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: