সর্বশেষ আপডেট : ১২ মিনিট ২৮ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৮ আশ্বিন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

শিক্ষক শ্যামল কান্তিকে কানধরে উঠবস: অ্যাটর্নি কার্যালয়ে প্রতিবেদন দাখিল

image-1403নিউজ ডেস্ক::নারায়ণগঞ্জের পিয়ার সাত্তার লতিফ হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক শ্যামল কান্তিকে কানধরে উঠবস করানোর ঘটনায় দোষীদের বিরুদ্ধে কি ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে তার একটি প্রতিবেদন এসেছে অ্যাটর্নি জেনারেল কার্যালয়ে।
বৃহস্পতিবার দুপুরে এ প্রতিবেদনটি অ্যাটর্নি জেনারেল কার্যালয়ে দাখিল করা হয়।
শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোতাহার হোসেন সাজুর কাছে এ প্রতিবেদনটি দাখিল করা হয়।
গত ১৮ মে শিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্তকে কান ধরে উঠ-বসের ঘটনায় দায়ীদের বিরুদ্ধে কেন শাস্তিমুলক ব্যবস্থা নেয়া হবে জানতে চেয়ে রুল জারি করেন হাইকোর্ট।

একইসঙ্গে এ ঘটনায় দায়ীদের বিরুদ্ধে কি ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে সেটি প্রতিবেদন আকারে আকারে আদালতে জমা দিতে বলা হয়। স্থানীয় প্রশাসন ও শিক্ষা মন্ত্রনালয়েল প্রতি এ আদেশ দেয়া হয়। সে আদেশের ফলে আজ শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোতাহার হোসেন সাজুর কাছে এ প্রতিবেদনটি দাখিল করা হয়েছে বলে জানা গেছে।
গত ১৮ মে বুধবার বিচারপতি মইনুল ইসাম চৌধুরী ও বিচারপতি মোহাম্মদ ইকবাল কবির লিটনের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদেশে শিক্ষক লাঞ্ছনার ঘটনা তদন্ত করে ৩ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারকে নির্দেশ দেন আদালত।

প্রসঙ্গত, গত ১৩ মে বিকালে ধর্ম অবমাননার অভিযোগ রটিয়ে নারায়ণগঞ্জের কলাগাছিয়া ইউনিয়নের কল্যাণদি এলাকায় পিয়ার সাত্তার লতিফ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্তকে সবার সামনে কান ধরে উঠ-বস করিয়ে ক্ষমা চাওয়ান স্থানীয় সংসদ সদস্য ও বিকেএমইএ নেতা সেলিম ওসমান।

তবে সেলিম ওসমান বলেন, শ্যামল কান্তি ধর্ম নিয়ে কটূক্তি করায় এলাকাবাসীর রোষ থেকে তাকে বাঁচাতে গিয়েছিলেন তিনি।
দশম শ্রেণির ছাত্র রিফাতের কথা বলে মসজিদের মাইকে ঘোষণা দিয়ে ধর্ম অবমাননার অভিযোগে লাঞ্ছিত করা হয়েছিল শিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্তকে। সেই রিফাতই এখন ধর্ম নিয়ে ওই শিক্ষকের কটূক্তি করার কথা অস্বীকার করেছেন।

তিনি বলেছেন, স্যার তাকে মারধর করায় সে বিচার চাইতে কমিটির কাছে গিয়েছিল। মারধরের সময় ধর্ম নিয়ে কোনো মন্তব্য করেননি তিনি।
এদিকে এ ঘটনা প্রথমে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আসার পর ব্যাপক সমালোচনার ঝড় উঠে। পরে গণমাধ্যমগুলোয় তা আসার পর সারা দেশে এ নিয়ে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের মধ্যে চরম প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। দাবি উঠে ঘটনার সুষ্ঠু বিচারের। এ ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: