সর্বশেষ আপডেট : ৭ ঘন্টা আগে
শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক পেয়েছেন নৌকা প্রতীক!

01.-daily-sylhet-UP-ect11নিউজ ডেস্ক::
শরীয়তপুরে পঞ্চম ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২৮ মে। জাজিরা উপজেলার ৫টি ইউনিয়ন ও নড়িয়া উপজেলার ১৩ ইউনিয়নে নির্বাচনী আমেজে সাধারণ ভোটারগণ উৎফুল্ল। কিন্তু জাজিরার পূর্ব নাওডোবা ইউনিয়নে বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক নৌকা প্রতীক পেয়েছে। আর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সাংগঠনিক সম্পাদক হয়েছে বিদ্রোহী প্রার্থী। বিএনপির প্রার্থী নৌকা পেয়ে বিদ্রোহীদের উপর চালাচ্ছে স্টীম রোলার।

২৮ মে’র নির্বাচনকে ঘিরে নাওডোবা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি মোঃ লাল চাঁন মাদবর, সাংগঠনিক সম্পাদক আলতাফ হোসেন খান আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীতা চেয়ে নৌকা প্রতীক দাবী করে। কোন এক অজানা কারণে ইউনিয়ন বিএনপি সাধারণ সম্পাদক মোঃ নেসার উদ্দিন মাদবর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সাংগঠনিক সম্পাদককে টেক্কা দিয়ে নৌাকা প্রতিক নিয়ে নেয়।

সাধারণ ভোটার, বিদ্রোহী প্রার্থীদের সমর্থক ও কর্মীদের সাথে আলাপ কালে জানায়, আগামী ২৮ মে’র নির্বাচনকে ঘিরে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী নেসার উদ্দিন মাদবর ও তার সমর্থকগণ এলাকায় প্রভাব বিস্তার করছে। আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী আলতাফ হোসেন খান ও লাল চাঁন মাদবরের সমর্থকগণ কোন প্রচারণায় নামতে পারে না। ভয় ভীতি প্রদর্শন, হুমকি, মারধর সহ পোষ্টার ও ব্যানার ছিড়ে ফেলছে। এমন কি নির্বাচনের দিন সকাল ৯টার মধ্যে ভোট কেন্দ্র দখল করে নিবে। ১, ২, ৪, ৮নং কেন্দ্রে ভোটারদের উপস্থিতি প্রয়োজন হবে না বলেও জানায় নৌকার প্রার্থী ও সমর্থকগণ।

পূর্ব নাওডোবা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী লাল চাঁন মাদবর জানায়, বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন পেয়ে নির্বাচন করছে। আর আমি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি হয়েও দলীয় মনোনয়ন পেলাম না। আমার সমর্থকগণ নির্বাচনী কার্যক্রম চালাতে পারে না। এলাকায় ভোট চাইতে গেলে আমার সমর্থকদের উপর নির্যাতন করে নৌকার প্রার্থী ও তার সমর্থকরা। রবিবার পাইন পাড়া এলাকায় ভোট চাইতে গেলে নেসার মাদবরের সমর্থক রাজ্জাক মাঝি আমার ভাই এসকান্দার মাদবরকে মারধর করে। আমার পোষ্টার, ব্যানার ছিড়ে ফেলে।

আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী আলতাফ হোসেন খানের ছেলে বাবু জানায়, আমরা আওয়ামী লীগ করি। বিপদের দিনেও আওয়ামী লীগের বাহিরে যাইনি। এখন আমার বাবাকে নৌকা প্রতীক না দিয়ে ইউনিয়ন বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদককে নৌকার প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দেয়। নির্বাচন না করার জন্য বিদ্রোহী প্রার্থীদের নিয়ে বিএম মোজাম্মেল হক এমপি মাঝির ঘাটে বসেছিল তখন আমি জিজ্ঞেস করে ছিলাম বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক আওয়ামী লীগের মনোনয়ন কেমনে পায়? এমপি সাহেবের কাছ থেকে তার কোন উত্তর পাই নাই।

জাজিরা উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মাস্টার জিএম নূরুল হক বলেন, নেসার উদ্দিন মাদবর জীবন ভরেই আওয়ামী লীগ পরিবারের লোক। এক সময় মঙ্গল মাঝির ঘাট রক্ষার জন্য বিএনপি’র কমিটিতে গিয়ে ছিল। তাছাড়া নির্বাচন এলে অনেকেই অনেক কথা বলে।

জেলা বিএনপি সাধারণ সম্পাদক সরদার একেএম নাসির উদ্দিন কালু বলেন, অনেক আগের কমিটিতে নেসার উদ্দিন মাদবর নাওডোবা ইউনিয়ন বিএনপি সাধারণ সম্পাদক ছিল। সে কমিটি এখন নাই। নতুন কমিটিতে নেসার উদ্দিন মাদবরকে অন্তর্ভূক্ত করা হয় নাই।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: