সর্বশেষ আপডেট : ২৭ মিনিট ১৯ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সরি বাংলাদেশ, একজন সাংসদ পাঁচজন মন্ত্রীর চেয়ে প্রভাবশালী!

445165be-df39-416e-b7b2-bc8a8ecc9d33গোলাম সাদত জুয়েল::
লিখব না্ লিখব দ্বীধাদ্বন্ধে ছিলাম , জাফর ইকবালের লেখার পর শাবির ছাত্রছাত্রীদের প্রতিবাদের পর কেন লিখব?
কিন্তু লিখতে বসলাম এ কারনে, পাঁচ জন মন্ত্রীর ঘোষণার পর সরকার কে চালায় দেখার জন্য । আইনমন্ত্রী , শিক্ষামন্ত্রী,পরারষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী , স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও তথ্যমন্ত্রী পাঁচ জন সেরা মন্ত্রী শিক্ষকের পক্ষ নেবার পর কি হবে তা দেখছিলাম। সরকার কে চালায় ।

প্রধানমন্ত্রী বুলগেরিয়া আমাদের কি উনার জন্য অপেক্ষা করতে হবে । শেখ হাসিনাকেই বিদেশে থেকে এ ঘটনায় বিবৃতি হবে । হায়রে বাংলাদেশ ? একজন শিক্ষক যিনি-কি-না ১৮ বছর তার প্রতিষ্টানকে তিল তিল করে টিনের ঘর থেকে অট্রালিকায় পরিণত করতে পেরেছেন । তার শ্রম ও মেধা এর মুল্য এ ভাবে দিতে হবে কে জানত। যদি কারও যোগ্যতা না থাকে সে প্রধান শিক্ষক হতে পারে না । সে মুসলিম হোক আর হিন্দু হোক। একটি মিথ্যা অপবাদে তাকে অপমানিত হতে হল, মিথ্যার কাছে সত্য জয়ি হয়ে যাচ্ছে ।

প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়া কত দ্রুত তদন্ত করতে পারে তারপরও আমাদের দেশের প্রশাসন কতটা সেকেলে । সারা দেশের মানুষ জেনে গেছে ঘটনা কি ঘটেছিল, একজন সম্মানিত শিক্ষক মানেজিং কমিটির অন্যায় আবদার না রাখায় কি সু কৌশলে ধমিয় অনুভুতির অপবাদ দিয়ে তার প্রতিষ্টানে তাকে অপদস্ত করা হল ।

হায়রে জাতি । আমাদের আরও অনেক কিছু দেখতে হবে । সেলিম ওসমানের মত ১৮ বছর পুবে যদি গার্মেন্টস ব্যবসায় প্রধান শিক্ষক প্রবেশ করতেন তাহলে ব্যাংক এর টাকা লোন নিয়ে চুরি করে ৪/৫ টা গার্মেন্টস দিতে পারতেন । অনেক টাকার মালিক হতে পারতেন , নারায়নগঞ্জে তা সম্ভব ছিল । তিনি মানুষ বানাবার কারিগর, মনন মেধা বিকাশের তাগিতে শিক্ষকতা শুরু করলেন । টিন শেডের আদলে শিক্ষা প্রতিষ্টান আজ বিরাট অট্রালিকা হাজার হাজার লক্ষ লক্ষ শিক্ষাথীরাজ দেশ বিদেশে । অথচ মানেজিং কমিটি নামক একটি কমিটি যেটি সব শিক্ষা প্রতিষ্টানে আছে তারা প্রধান শিক্ষককে ম্যানেজ করে শিক্ষা প্রতিষ্টানে দুর্নীতি করে । শ্যামল কান্তি প্রধান শিক্ষক, প্রধান শিক্ষকরা সব সময় কড়া হয়ে থাকেন।

তাদের সব সময় কঠোর ও কড়া থাকতে হয় এডমিনিষ্টেশন চালাবার জন্য । তার অপবাদ এ মাত্র । কোন কিছুতে সুবিধা করতে না পেরে হিন্দু ভদ্রলোক প্রধানশিক্ষক কে একটি পরিকল্পিত নাটক সাজাল ম্যানেজিং কমিটি তিনি ফেসে গেলেন । নারায়নগঞ্জ এর কলংক ওসমান পরিবারের নতুন সংস্করন সেলিম ওসমান যে কান্ডটা করলেন তাতে সারা দেশ স্তম্ভিত । তার মত লোকের কাছে কি আর আশা করা যায় । দ্বিতীয় ঘটনাটা ম্যানেজিং কমিটি শিক্ষক শ্যামলকে সাময়িক বহি:স্কার করলেন ।

জেলা ও উপজেলা শিক্ষা কমকতা ও ইউএন ও নাামের সরকারী কমকতা বা জেলা প্রশাসক বলে কিছু আাছে কিনা আমার জানা নে্ই । আইনমন্ত্রী , শিক্ষামন্ত্রী , পররাষ্ট্রপ্রতিমন্ত্রী ও সবশেষ সিলেটে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল ইনু শিক্ষক অবমাননা মেনে নেয়া হবে বলার পর কি হবে দেখার অপেক্ষায় দেশবাসী । নাকি প্রধানমন্ত্রী বিদেশে বা ঢাকা বিমা্ন বন্দরে নামার পর কোন ঘোষনা দিবেন এ পযন্ত আমাদের অপেক্ষা করতে হবে । জাতীয় পাটির পক্ষ থেকেও কোন টু শব্দ শোনা যাচেছ না । রওশন এরশাদ নামের একজন পৌড় রাজনীতিবিদ যাবে আবার বিরোধী দলীয় নেত্রী বলা হয়ে থাকে বেচে আছেন না মরে গেছেন জাতি জানতে চায় ।

হায়রে শিক্ষক সমাজ, সারা বাংলাদেশের শিক্ষক সমাজ কেন চুপ । সবাই তামাশা দেখছে । শিক্ষকদের রাস্তায় নেমে আসলে সেলিম ওসমান এর বিচার হত আর ভবিষ্যতে কেউ শিক্ষকদের অপদস্ত করতে সাহস করত না ।

শিক্ষক সমাজ আমাদের অহংকার। তাদের প্রতি কোন অনুকম্পা নয় , নৈতিক দায়িত্ব শিক্ষকদের সম্মান করা । একজন শিক্ষক যখন আহাজারি করে বলে , আমার যে টুকু সম্মান ছিল তা নেই – আমি মৃত। তখন প্রবাসে বসেও তার জন্য চোখের পানি ফেলা ছাড়া আমাদের কি আছে । হিন্দু মুসলিম সহ অবস্তানে ৪৫ বছর থেকে বাস করছেন , ভাই ভাই হিসাবে। ইতিহাস বলে কোন হিন্দু মুসলিম দের অপমান করে না , ঠিক তেমনি মুসলিমরা হিন্দুরা অপমান করে না। তা করতে পারে না । যা হয়ে থাকে ইদানিং প্রতিমা ভাংচুর , হিন্দুদের বাড়ী ঘর ভাংচুর, আবার হযরত মোহাম্দদকে অপমান হিন্দুদের দ্বারা সবই পরিকল্পিত রাজনৈতিক । বাংলাদেশে দুটো সম্প্রদায়ের সহ অবস্তান যুগ যুগ ধরে ।

শ্যামল কান্তির মত একজন বিচক্ষন ও সুশিক্ষিত প্রধান শিক্ষক কখনও ধমিয় অনুভুতিতে আঘাত দিতে পারেন না । সব সাজানো , সারা বাংলাদেশকে কয়েক লক্ষ অসাধু ব্যবসায়ী, অসাধু রাজনীতিবিদ , দুনিতীবাজ কমকতারা, অসাধু শিক্ষক সমাজ , অসাধু বাংকাররা , অসাধু প্রশাসন কানে ধরে ওঠবস করাচেছ । আমরা ১৬ কোটি তাদের গোলচক্করে ঘোরপাক খাচিছ । শুধু সেলিম ওসমান নয় যারা ওখানে উপস্তিত ছিলেন তাদের সবাইকে মাফ চাইতে হবে ।

স্বসম্মানে তিনি তার প্রাপ্য মযাদায় তার প্রতিষ্টানে ফিরে আসবেন । স্কুলের ম্যানেজিং কমিটি ভেংগে দিতে হবে । তার জন্য আমরা ক্ষমা প্রাথনা করছি । আর সেলিম ওসমান নামের পশুটার প্রতি থাকবে আজীবনে ঘৃনা ।
গোলাম সাদত জুয়েল, আমেরিকা।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: