সর্বশেষ আপডেট : ৮ মিনিট ৫৮ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

নবীগঞ্জে ইউপি নির্বাচনের প্রার্থীদের সাথে প্রশানের আচরনবিধি অবহিতকরণ ও মতবিনময় সভা

2535d002-aa00-48ac-95d6-a075cc921002নবীগঞ্জ প্রতিনিধি:
হবিগঞ্জের জেলা প্রশাসক সাবিনা আলম বলেছেন- নবীগঞ্জ উপজেলার সকল ইউনিয়নে নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হবে বলে আমি আশাবাদী। তিনি বলেন- উপজেলা পরিষদে নয় প্রতিটি কেন্দতেই ভোট ঘননা করা হবে। এবং এর রেজাল্টের কপি প্রার্থীদের এজেন্টকে বুঝিয়ে দেওয়া হবে। তিনি বলেন, নির্বাচনে প্রতি পদে একাধীক প্রার্থী রয়েছেন কিন্তু সবাই নির্বাচিত হবেন না, প্রতি পদে ১ জন করে নির্বাচিত হবেন, তাই বাকিদের হার মানতে হবে এবং হার মানারও মন মানষিকতা থাকতে হবে। জনগন যাকে ভোট দেবে সেই প্রার্থীই বিজয়ী হবে।

তিনি আরো বলেন, ভোট কেন্দ্রে ভোটারদের আনার দায়ীত্ব প্রার্থীদের নয়। ভোটার যতই বৃদ্ধ হোক সে নিজেই এসে তার ভোটাধীকার প্রয়োগ করবে।
বৃহস্পতিবার সকালে নবীগঞ্জ উপজেলা প্রশানের আয়োজনে উপজেলা পরিষদের হল রুমে “ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে নবীগঞ্জ উপজেলার সকল প্রার্থীদের সাথে আচরন বিধি অবহিতকরণ এবং মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক সাবিনা আলম উপরোক্ত বক্তব্য প্রদান করেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ মাসুম বিল্লাহর সভাপতিত্বে ও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আনোয়ার হোসেনের পরিচালায় এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন, হবিগঞ্জ জেলার পুলিশ সুপার জয় দেব কুমার ভদ্র, জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা বেলায়েত হোসেন চৌধুরী, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলমগীর চৌধুরী, জেলার সহকারী পুলিশ সুপার সাজিদুর রহমান, থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল বাতেন খাঁন, উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আবু সাঈম, মৎস্য কর্মকর্তা রাশেদুজ্জামান, কৃষি কর্মকর্তা দুলাল উদ্দিন, পানি সম্পদ কর্মকর্তা সামছুল ইসলাম, প্রেসক্লাবের অফিস সম্পদক মতিউর রহমান মুন্না। এ সময় বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও সাধারন সদস্য প্রার্থীরা তাদের অনুভূতি প্রকাশ করেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, কোন প্রার্থীর যদি নির্বাচনের ব্যাপারে কোন অভিযোগ থাকে তাহলে সাথে সাথে জানাতে হবে এবং যদি কোন প্রার্থী নির্বাচনী বিধি লঙ্ঘন করেন তাহলে আচরণবিধির ধারা অনুযায়ী প্রশাসন আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করবে। তবে নবীগঞ্জে এখন পর্যন্ত কোন অভিযোগ আসেনি।
তিনি বলেন, দুপুর ২ টা থেকে রাত ৮ টা পর্যন্ত প্রচার প্রচারনা, মিছিল, মিটিং ও মাইকিং করতে হবে, তবে পথ সভা বা মিটিং করার আগে অবশ্যই পুলিশকে জানাতে হবে। যদি মিটিং বা পথসভা প্রশাসনকে না জানিয়ে করেন এবং নির্দিষ্ট সময়ের বাহিরে করেন তখন কোন সমস্যা হলে আমাদের তেমন দায়বার থাকে না।

তিনি বলেন, নির্বাচনী প্রচারনার পরে এলাকায় কোন বাহিরাগত কোন লোক থাকলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষভাবে অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে নবীগঞ্জ উপজেলা ৬শত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: