সর্বশেষ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে
মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ইউরোপীয়ান প্রবাসী বাংলাদেশি অ্যাসোসিয়েশন (ইপিবিএ) সেমিনার ও মিট দ্যা প্রেস, প্রবাসী আয় দ্বিগুন করা সম্ভব

abe7c5ca-a6c1-4c93-9e2c-7b677ba6312cজনশক্তি রপ্তানির নতুন বাজার খোঁজার পাশাপাশি দক্ষতা ও নিরাপদ অভিবাসন নিশ্চিত করতে পারলে প্রবাসী-আয় দ্বিগুন করা সম্ভব বলে জানিয়েছে ইউরোপীয়ান প্রবাসী বাংলাদেশী অ্যাসোসিয়েশন (ইপিবিএ)। মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবে এক সেমিনার ও মিট দ্যা প্রেসে, এয়ারপোর্টে প্রবাসীদের হয়রানী, সরকারি খরচে প্রবাসীদের লাশ আনাসহ বেশ কয়েকটি দাবি তুলে ধরে সংগঠনটি। এতে ইপিবিএ’র পক্ষ থেকে বক্তব্য করেন সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার ওসমান হোসাইন মনির। তিনি বলেন, আমাদের এখন নতুন করে মনোযোগ দেয়া দরকার দক্ষ ও শিক্ষিত জনশক্তি রপ্তানির দিকে। সর্বোপরি দরকার এ নিয়ে একটি সুদূরপ্রসারি কর্ম-পরিকল্পনা। বিদেশ থেকে এই লাশ আনা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এ নিয়েও চরম ভোগান্তি পোহাতে হয় স্বজনদের। ক্ষতিপূরণ পাওয়া তো দূরের কথা, বেশির ভাগ সময় অন্য প্রবাসীদের কাছ থেকে চাঁদা তুলে লাশ দেশে পাঠাতে হয়। এই চিত্র ভয়াবহ ইউরোপের বিভিন্ন দেশে। চাঁদা তুলে লাশ পাঠানোর বিকল্প উপায় নেই।

ইউরোপীয়ান প্রবাসী বাংলাদেশী অ্যাসোসিয়েশন (ইপিবিএ) বাংলাদেশ কো-অডিনেটর ইকবাল করিম নিশানের পরিচালনায় সেমিনারের প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রবাসী কল্যাণ সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ইসরাফিল আলম এমপি বলেন, জনশক্তি রপ্তানির নতুন বাজার ও দক্ষ মানবসম্পদ গড়তে সরকার কাজ কওে যাচ্ছে। তিনি বলেন, ১৯৭১ এর বীর মুক্তিযুদ্ধাদের মতো প্রবাসীরাও জাতীর শ্রেষ্ঠ সন্তান। তার দেশের জিডিপিতে ১৪ শতাংশ অবদান কারছে। আমাদের অর্থমন্ত্রীও বিষয়টি গর্ভ করে বলেন। আমার ওনার প্রতি প্রশ্ন, যারা এই অবদান রাখছে সেই শ্রমিক ভাইদের জন্য আপনি কি করছেন? আমি প্রবাসীদের লাশ সরকারী খরচে দেশে আনার পাশাপাশি বাজেটে বিশেষ বরাদ্ধ রাখতে সংশ্লিষ্টদেও প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি। পাশাপাশি এইনিয়ে আমি আমার অবস্থান থেকে কাজ করবো। সেমিনারে বায়রার সিনিয়র সহ সভাপতি আলী হায়দার চৌধুরী বলেন, প্রবাসীদের কল্যাণে অনেক কাজ করা এখনও বাকী রয়েছে। আমাদের তা করতে হবে। আমাদেও মনে রাখতে হবে, তারা শ্রমিক নন, মানুষ।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন নিম্মতম মজুরি বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান, সাবেক জজ, সংবিধান ও অর্থনীতি বিশ্লেষক ইকতেদার আহমেদ, বাংলাদেশ মানবাধিকার ব্যুরোর মহাসচিব ও বাংলাদেশ মানবাধিকার ফেডারেশনের আহবায়ক অ্যাডভোকেট ড. মো: শাহজাহান, নাগরিক সংহতির সাধারন সম্পাদক শরিফুজ্জামান শরিফ, জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক কামরুল ইসলাম চৌধুরী, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের মহাসচিব ওমর ফারুক, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি শাবান মাহমুদ, ফারাম ফর এনার্জি রিপোর্টার্স বাংলাদেশ’র চেয়ারম্যান মোল্লাহ আমজাদ হোসেন, ইকোনমিক রিপোর্টার্স ফোরাম- ইআরএফের সভাপতি, সাইফ ইসলাম দিলাল, ইপিবিএর উপদেষ্টা এস এইচ হায়দার (ফ্রান্স), ইপিবিএর অর্থ সচিব শারফুদ্দীন আহমেদ জুয়েল (জার্মানি), ইপিবিএর সাংগঠনিক সম্পাদক অলিউদ্দিন শামীম (ইতালি)।

ইপিবিএ’র সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার ওসমান হোসাইন মনিরের লিখিত বক্তব্য:
জনশক্তি রপ্তানির নতুন বাজার খোঁজার পাশাপাশি দক্ষতা ও নিরাপদ অভিবাসন নিশ্চিত করতে পারলে প্রবাসী-আয় দ্বিগুন করা সম্ভব। আমাদের এখন নতুন করে মনোযোগ দেয়া দরকার দক্ষ ও শিক্ষিত জনশক্তি রপ্তানির দিকে। সর্বোপরি দরকার এ নিয়ে একটি সুদূরপ্রসারি কর্ম-পরিকল্পনা।

বর্তমানে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে সরকারি হিসাব মতে, প্রায় ৯৮ লাখ বাংলাদেশি কাজ করেন। বেসরকারি হিসাবে এই সংখ্যা অনেক বেশি। এর মধ্যে ৫০ লাখ বাংলাদেশি কাজ করেন কেবল মধ্যপ্রাচ্যে। গত ৪০ বছরে প্রবাসী আয় হয় ১০ লাখ ৪৬ হাজার ৩২ কোটি টাকা। এটা কেবল বৈধভাবে প্রবাসীদেও পাঠানো টাকার হিসাব। বাস্তবে এই অংক দ্বিগুনেরও বেশি।

এই যে বিপুল অংকের প্রবাসী-আয়, এর পেছনে রয়েছে অনেক করুণ কাহিনী। টাকা উপার্জনের জন্য অমানুষিক পরিশ্রম করতে হয় প্রবাসীদের। অনেকে দৈনিক ১২ থেকে ১৮ ঘণ্টা পর্যন্ত কাজ করেন। পাশাপাশি রয়েছে নির্যাতন, প্রতারণা, অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে গাদাগাদি করে বসবাস ও পুষ্টিকর খাবার না খাওয়া। আছে কর্মক্ষেত্র ও প্রিয়জনদের নিয়ে দুশ্চিন্তা। এসব কারণে সহজে প্রবাসী শ্রমিকরা মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ, হৃদরোগ ও ক্যান্সারের মতো জটিল রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন এবং অকালে মারা যাচ্ছেন। এছাড়া আছে কর্মক্ষেত্রে দুর্ঘটনা, সড়ক দুর্ঘটনা, আত্মহত্যা ও খুনের ঘটনা। এক হিসাবে দেখা যায়, গত এক দশকে ২৫ হাজার ২২৯ জন প্রবাসীর লাশ এসেছে দেশে। ২০১৫ সালে ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর দিয়ে দেশে লাশ এসেছে ৩ হাজার ৩০৭ জনের। এরমধ্যে ৬১ শতাংশই এসেছে মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশ থেকে।

বিদেশ থেকে এই লাশ আনা নিয়েও চরম ভোগান্তি পোহাতে হয় স্বজনদের। ক্ষতিপূরণ পাওয়া তো দূরের কথা, বেশির ভাগ সময় অন্য প্রবাসীদের কাছ থেকে চাঁদা তুলে লাশ দেশে পাঠাতে হয়। এই চিত্র ভয়াবহ ইউরোপের বিভিন্ন দেশে। বিশেষভাবে যারা অ্যাসাইলাম নিয়ে সেখানে বসবাস করছেন, তাদের কারো মৃত্যু হলে চাঁদা তুলে লাশ পাঠানোর বিকল্প উপায় নেই। আমরা আজকের সেমিনার থেকে, সরকারি উদ্যোগে দেশে লাশ আনার প্রস্তাব করছি। এক্ষেত্রে দূতাবাসগুলোকে দায়িত্ব দেয়া যেতে পারে।

আমরা মনে করি, দক্ষ কর্মী পাঠানোর পাশাপাশি দূতাবাসগুলোর মাধ্যমে যথাযথ তদারক করা গেলে প্রবাসীদের সমস্যা অনেক কমে যাবে। শ্রমিক প্রেরণ ও গ্রহণকারী উভয় দেশ চাইলে কাজের পরিবেশ ভালো করা সম্ভব। কর্মীরা দক্ষ হলে কর্মক্ষেত্রে দুর্ঘটনাও কমবে। তাই সবার আগে দক্ষ শ্রমিক রপ্তানি নিশ্চিত করতে হবে। পাশাপাশি অভিবাসী শ্রমিকদের অধিকার বিষয়ে সচেতন করার উদ্যোগ নেয়া জরুরি বলে আমরা মনে করি। বর্তমানে অনেক দেশে নারী শ্রমিকের চাহিদা অনেক বেড়েছে। তাই নারী অভিবাসীদের অধিকারে আইএলও’র গৃহশ্রমিক সনদ ১৮৯ অনুস্বাক্ষর, তাদের সহায়তায় নারী লেবার এটাচি ও আশ্রয়কেন্দ্রের ব্যবস্থার দাবি জানাচ্ছি আমরা।

আমরা প্রায় পত্রিকায় শিরোনাম হতে দেখি, অবৈধপথে বিদেশে পাড়ি দিতে গিয়ে মৃত্যু। এই মিছিল দিন দিন বাড়ছে। যার বেশির ভাগের খবর পাই না আমরা। অবৈধ পথে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বিদেশ যাওয়া বন্ধ করতে সচেতনতামূলক কর্মসূচি নেয়া জরুরি হয়ে পড়েছে। পাশাপাশি যারা এই মানবপাচারে জড়িত, তাদের জন্য আরও কঠোর আইন প্রণয়ন ও তা যথাযথ প্রয়োগ নিশ্চিতের প্রস্তাব করছি আমরা।
এতোক্ষন ধৈর্য্য ধরে আমার বক্তব্য শোনার জন্য সবাইকে ধন্যবাদ।

ইপিবিএর দাবি সমূহ। সেমিনারে তুলে ধরেন অর্থ সচিব শারফুদ্দীন আহমেদ জুয়েল (জার্মানি):
দক্ষ ও শিক্ষিত জনশক্তি রপ্তানির দিকে বিশেষ নজর, রাষ্ট্রিয় খরচে প্রবসীদের লাশ আনার প্রস্তাব, প্রবাসীদের ভোটাধিকার নিশ্চিত করার প্রস্তাব, অবৈধ জনশক্তি রপ্তানির বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার দাবি, এয়ারপোর্টে হয়রানী বন্ধেওয়ানস্টপ সলিউশন হেল্প ডেস্ক করা, প্রাবাসী আয় বাড়াতে সহজ উপায়ে বিদেশ থেকে টাকা প্রেরণের প্রস্তাব, দ্বৈত নাগরিক নিয়ে সমস্যা সমাধানের দাবি, প্রবাসীদের দেশে সহজ শর্তে বিনিয়োগের সুযোগ দেয়ার দাবি, প্রবাসীসহ সকল নাগরিকের নিরাপত্তা নিশ্চিতের দাবি এবং বিদেশে অবস্থিত দূতাবাসগুলোকে আরো কার্যকর করার প্রস্তাব। পাশাপাশি সেবা ও লোকবল বাড়ানোর দাবি। -বিজ্ঞপ্তি

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: