সর্বশেষ আপডেট : ৪৯ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

মানবসৃষ্ট কারণে কৃত্রিম বন্যায় বড়লেখার তিন শতাধিক দোকানে পানি ওঠে কোটি টাকার ক্ষতি

8130780a-1b4c-42ca-afc1-2235054850aaবড়লেখা প্রতিনিধি::
মৌলভীবাজারের বড়লেখা পৌরসভার উত্তর চৌমুহনী, উপজেলার দক্ষিণভাগ উত্তর ইউনিয়নের কাঁঠালতলী বাজার, দক্ষিণভাগ দক্ষিণের রতুলী, হাতলিঘাট এলাকায় বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। এতে তিন বাজারের প্রায় তিনশত দোকানে পানি ওঠেছে। দোকানগুলোর মালামাল পানিতে ভিজে নষ্ট হয়ে প্রায় কোটি টাকার উপরে ক্ষতি হয়েছে। এদিকে কৃত্রিম বন্যায় তলিয়ে গেছে বড়লেখা-শাহবাজপুর সড়কের ডিগ্রি কলেজ এলাকা। মঙ্গলবার (১৭ মে) দিবাগত রাত ২টা থেকে এই জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। মানবসৃষ্ট কারণে পানি প্রবাহে বিঘœ ঘটায় প্রতি বছর বর্ষা মৌসুম এলেই এমন চরম দুর্ভোগের শিকার হন পৌরবাসীসহ সংশ্লিস্ট ভুক্তভোগী এলাকার মানুষ।

বুধবার (১৮ মে) সকালে সরেজমিনে বড়লেখা পৌরসভার মেয়র কামরান চৌধুরী, প্যানেল মেয়র তাজ উদ্দিন, কাউন্সিলর আব্দুল মালিক জুনু, রাহেন পারভেজ রিপন প্রমুখ জলাবদ্ধ ও ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করেছেন।

সূত্র জানায়, গত মঙ্গলবার দিনে ও রাতে উপজেলায় কয়েক দফা ভারিী বৃষ্টি হয়েছে। এতে পাহাড়ি ঢলে পৌর শহরের উত্তর চৌমুহনী এলাকার দুই শতাধিক দোকান পানিতে তলিয়ে গেছে। অনেক দোকানের মালামাল পানিতে ভিজে নষ্ট হয়েছে।

e9c1b6e3-6cde-4afa-b1b3-914bfff17d34সরেজমিনে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, পানিতে তলিয়ে যাওয়া দোকানের ব্যবসায়ীরা দোকান থেকে নষ্ট মালামাল সরাচ্ছেন। পৌরসভার উত্তর বাজারের ব্যবসায়ী নাজিম উদ্দিন জানান, তাঁর ভূষিমালের (মুদি) দোকানে পানি ওঠেছে। এতে মালামাল ভিজে প্রায় ২ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। এছাড়া বড়লেখা-শাহবাজপুর সড়কের উত্তর চৌমুহনী ও বড়লেখা ডিগ্রি কলেজ এলাকা পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় এ সংবাদ লেখা পর্যন্ত এ সড়ক দিয়ে সিএনজিচালিত অটোরিকশাসহ ছোট যান চলাচল করতে পারছে না। এতে সাধারণ যাত্রীরা দুর্ভোগে পড়েছেন।

অপরদিকে ঢলে দক্ষিণভাগ উত্তর ইউনিয়ন পরিষদ ও স্থানীয় কাঁঠালতলী বাজার ও রতুলী বাজার এলাকায় অর্ধশতাধিক দোকানে পানি ওঠেছে। এছাড়া দক্ষিণভাগের হাতলিঘাট এলাকায় কুলাউড়া-বড়লেখা সড়কের স্থানে স্থানে কয়েক কিলোমিটার এলাকা পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। একইভাবে পৌর এলাকার ৬ নম্বর ওয়ার্ড, হাটবন্দ, বারইগ্রাম, আদিত্যের মহাল, গাজিটেকার আংশিক এবং বড়লেখা সদর ইউনিয়নের গঙ্গারজল এলাকাতেও জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। এতে প্রায় ৫ শতাধিক পরিবার জলাবদ্ধতার শিকার হয়েছে।

aab2bd96-2d47-40ee-baec-deef3fe3da56অন্যদিকে পৌরসভা ও সদর ইউনিয়ন এলাকার মাছের খামারের প্রায় ৫০টি পুকুরের মাছ ভেসে গেছে। এতে প্রায় আরও অর্ধকোটি টাকার ক্ষতি সাধিত হয়েছে।
বড়লেখা পৌরসভার মেয়র কামরান চৌধুরী জানান, জলাবদ্ধতার অবস্থা খুবই খারাপ। মূলত শহরের দক্ষিণে নিখড়ী ও উত্তরে ষাটমা নামে দু’টি নদী আছে। এ দু’টির উৎসই হচ্ছে পাথারিয়া পাহাড়। নদী বেদখল ও খনন না করায় বৃষ্টি হলেই ঢল নামে। আর তা শহরে এসে আঘাত হানে। নদী দখলমুক্ত ও খনন করা হলে আর শহরে পানি ওঠবে না।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: