সর্বশেষ আপডেট : ২৬ মিনিট ৪ সেকেন্ড আগে
বুধবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

আইএস সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ২ যুবকের কারাদণ্ড

jongi-001প্রবাস ডেস্ক:
জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেটের (আইএস) সঙ্গে সংশ্লিষ্টতা এবং যুক্তরাজ্যে থাকা মার্কিন সেনাদের ওপর হামলার পরিকল্পনার অভিযোগে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত দুই যুবককে কারাদণ্ড দিয়েছেন দেশটির আদালত।

তাদের একজন জুনায়েদ আহমদ খানকে (২৫) যাবজ্জীবন এবং অন্যজন সজীব খানকে (২৩) আট বছর সাজা দেয়া হয়েছে। সাজা ভোগের পর সজীব খানকে আরও পাঁচ বছর নজরদারিতে (লাইসেন্স) থাকতে হবে।

বিবিসি বাংলার খবরে বলা হয়েছে, সাজাপ্রাপ্ত দুইজনই ব্রিটিশ নাগরিক এবং তারা ইংল্যান্ডের লুটন শহরের বাসিন্দা। শুক্রবার (১৩ মে) লন্ডনের কিংসটন ক্রাউন কোর্ট এই সাজা দেয় বলে খবরে উল্লেখ করা হয়েছে। এর আগে গত ১ এপ্রিল জুরিবোর্ড সন্ত্রাসবাদের দায়ে দুই যুবককে দোষী সাব্যস্ত করে।

খবরে বলা হয়েছে, যুক্তরাজ্যে জন্ম নেয়া জুনায়েদ আহমদ শৈশবের কিছু সময় বাংলাদেশে পড়াশোনা করেছেন। যুক্তরাজ্যে তার শিক্ষাজীবন মাধ্যমিক পর্যায়ের আগেই থেমে যায়। এরপর তিনি বেশ কয়েকটি চাকরি করে অ্যালায়েন্স হেলথ নামে একটি কোম্পানিতে গাড়িচালক হিসেবে যোগ দেন। আর সজীব খান বেকার ছিলেন। জুনায়েদ ও সজীব সম্পর্কে চাচা-ভাতিজা বলে পরিচয় দিয়েছেন।

রায় ঘোষণার সময় বিচারক এডিস বলেন, যুক্তরাজ্যের দেয়া মূল্যবোধ ও সুযোগকে প্রত্যাখ্যান করেছেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ওই দুই যুবক। তারা শরিয়া আইনকে একমাত্র বৈধ আইন বলে মনে করেছেন এবং মানুষের তৈরি গণতন্ত্রকে প্রত্যাখ্যান করেছেন।

জুনায়েদ খান নৃশংস উপায়ে হত্যাকাণ্ড ঘটানোর চেয়ে খুব একটা দূরে ছিলেন না। তাই তাকে যাবজ্জীবন দণ্ডই দিতে হবে। ১২ বছর কিংবা তার বেশি সময়ের জেল হলে যুক্তরাজ্যে তা যাবজ্জীবন হিসেবে বিবেচিত হয়।

জুনায়েদ আহমদ খান ও সজীব খানকে গত বছরের ১৪ জুলাই গ্রেফতার করে পুলিশ। ইংল্যান্ডের পূর্বাঞ্চলীয় শহর সাফোকে অবস্থিত আরএএফ লেইকেনহিথ ও আরএএফ মিলডেনহল সামরিক ঘাঁটিতে মার্কিন সেনাদের অবস্থান।

জুনায়েদ ঘাঁটিসংলগ্ন সড়কে মার্কিন সেনাদের গাড়ির সঙ্গে দুর্ঘটনা ঘটিয়ে হত্যার পরিকল্পনা করেন। আর সজীব চেয়েছিলেন জুনায়েদকে সঙ্গে নিয়ে সিরিয়ায় পাড়ি দিতে।

যুক্তরাজ্যের মেট্রোপলিটন কাউন্টার টেররিজম কমান্ডের কমান্ডার ডিন হেইডন দুই যুবককে ‘সেলফ রেডিকেলাইজড’ বা কোনো প্ররোচনা ছাড়াই উগ্রবাদী হয়ে ওঠা যুবক বলে আখ্যায়িত করেছেন।তিনি আদালতে বলেন, ২০১৪ সালের শুরুর দিকে লুটনে উগ্রবাদীদের একটি সভায় যোগ দেয়ার কারণে দুই যুবক তাদের নজরে আসেন। পুলিশের উগ্রবাদ প্রতিরোধ দলের সদস্যরা বেশ কয়েক দফা তাদের উগ্রবাদ থেকে ফেরাতে উগ্রবাদ প্রতিরোধ কার্যক্রমে (রেডিকেলাইজেশন প্রিভেন্ট প্রোগ্রাম) যুক্ত করার চেষ্টা করে ব্যর্থ হন।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: