সর্বশেষ আপডেট : ১৯ মিনিট ১৯ সেকেন্ড আগে
শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

অপরাধ তদন্তে আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনালের কর্মকর্তারা বড়লেখায়

ggggggবড়লেখা প্রতিনিধি :: মৌলভীবাজারের বড়লেখায় একাত্তর সালে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন পাকবাহিনী ও রাজাকার কর্তৃক যুদ্ধাপরাধ ঘটনার তদন্ত ও বিভিন্ন বধ্যভূমি পরিদর্শন করেছেন আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনালের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। ট্রাইব্যুনালের কর্মকর্তারা শনিবার (১৪ মে) দুপুরে জেলা পরিষদ ডাকবাংলোয় ভুক্তভোগী মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের পরিবারের সদস্যদের স্বাক্ষ্য গ্রহণ করেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ’৭১ সালের ১৯ মে স্থানীয় রাজাকার ও আলবদরদের সহযোগিতায় পাকবাহিনী উপজেলার ঘোলসা গ্রামের মুক্তিযোদ্ধাদের সহযোগি নগেন্দ্র কুমার দাস, মতিলাল দাস, হরেন্দ্র লাল দাস, নিবাস দাসসহ কয়েকজনকে বর্তমান উপজেলা কমপ্লেক্স সংলগ্ন ক্যাম্পে ধরে নিয়ে যায়। তিনদিন নির্যাতনের পর ২২ মে রাতে জুড়ীর একটি ক্যাম্পে কুপিয়ে তাদের হত্যা করে। মৃত ভেবে বধ্যভূমিতে ফেলে দেয়া নিবাস দাসকে গলাকাটা ও অর্ধমৃত অবস্থায় মুক্তিবাহিনী উদ্ধার করে। এসব যুদ্ধাপরাধ ঘটনার তদন্ত ও স্বাক্ষ্য গ্রহণ শনিবার জেলা পরিষদ ডাকবাংলোয় অনুষ্ঠিত হয়।

ট্রাইব্যুনালের প্রধান সমন্বয়কারী আব্দুল হান্নান, মামলার তদন্ত কর্মকর্তা শাহজান কবির, অতিরিক্ত এটর্নি জেনারেল মুখলেছুর রহমান বাদল এবং সহকারি এটর্নি জেনারেল পারভীন সুলতানা ভুক্তভোগীদের স্বাক্ষ্য গ্রহণ করেন।

ট্রাইব্যুনালের তদন্ত কর্মকর্তা শাহজান কবির জানান, ’৭১ সালে মুক্তিযোদ্ধে পাকবাহিনীর নির্মম হত্যাকাণ্ডের প্রত্যক্ষদর্শী ২৬ জনকে স্বাক্ষ্য প্রদানের জন্য ট্রাইব্যুনাল থেকে নোটিশ দেয়া হয়। এদের মধ্যে কয়েকজন বীরাঙ্গনাও ছিলেন।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: